গসিপবিনোদনসিরিয়াল

দুর্দান্ত অভিনয়ে মুগ্ধ করেছেন দর্শকদের, রইল মন্ত্রীর হাত ধরে অম্বরীশের পর্দায় আসার কাহিনী

বাংলা বিনোদন জগতের অন্যতম জনপ্রিয় মুখ হলেন অম্বরীশ ভট্টাচার্য (Ambarish Bhattacharya)। ছোট পর্দা থেকে বড়পর্দা দুদিকেই অসাধারণ বিচরণ তাঁর। বর্তমানে স্টার জলসার জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘খড়কুটো’য় (Khorkuto) পটকা চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। এই চরিত্র দর্শকমহলে তাঁকে এক বিরাট পরিচিতি এনে দিয়েছে। এর আগে রাজা গজা সিরিয়ালেও দুর্দান্ত অভিনয় করে দর্শকদের মন কেড়েছিলেন অভিনেতা।

রাজা-গজা থেকে পটকা, বাংলার দর্শকদের মুখে হাসি ফোটানোরর রসদ তিনি। আট থেকে আশি সবার কাছে খুব প্রিয় মানুষ পটকা। তাঁর অভিনয় দেখে প্রাণ খুলে হাসতে পারেন সকলেই। তাই ইন্ডাস্ট্রিতে তাঁকে হাসির রাজা বলা হয়। ছোট ও বড় পর্দা মিলিয়ে প্রচুর কাজ করেছেন। দেখতে দেখতে অভিনয়ের জগতে এসে কেটে গিয়েছে ১৪টা বা বছর। তবে শুরুর দিনের স্মৃতি যুগের পর যুগ কেটে গেলেও তাজা থাকে। অম্বরীশের ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে।

Ambarish Bhattacharya

সম্প্রতি নিজের কেরিয়ারে শুরুর দিনের কথা সংবাদ মাধ্যমের সাথে শেয়ার করেছেন অম্বরীশ ভট্টাচার্য। আনন্দবাজার অনলাইনের সাথে লাইভ প্রশ্নোত্তর পর্বে হাজির হয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের পর্যটনমন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন। সেখানেই অভিনেতা অম্বরীশ কমেন্ট করে মন্তব্য করেন, ‘ইন্দ্রনীল দা না থাকলে অভিনয় করা হাত না’। এই প্রশংসা শুনে অভিনেতার কেরিয়ারের শুরু সম্পর্কে কিছু তথ্য জানিয়েছেন ইন্দ্রনীল সেন।

ইন্দ্রনীলবাবু জানান, এই প্রশংসাবাক্যের উৎপত্তি খুঁজতে গেল ফিরে যেতে হয় ২০০৭ সালে। আমার প্রোডাকশনের একটি প্রকেক্টই প্রথম অভিনয়ের সুযোগ পায় অম্বরীশ’। জনপ্রিয় টিভি সিরিয়াল রাজা গজা সিরিয়ালের হাত ধরেই অভিনয়ের জগতে আসা অভিনেতা অম্বরীশের। সিরিয়ালের গজা তথা গজেন্দ্র চৌধুরীর চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি। সাথে রাজার চরিত্রে ছিলেন অভিনেতা সৌরভ চক্রবর্তী।

এক দশক পেরিয়ে গিয়েছে সিরিয়াল শেষ হয়ে. তবে সিরিয়ালের জনপ্রিয়তা কিন্তু এখনও অমলিন রয়ে গেছে। বিখ্যাত সেই ডায়লগ ‘আমি গজা, গজেন্দ্র চৌধুরী, কেয়ার অব পঞ্চানন চৌধুরী’ আজও ভোলেনি বাঙালি বিনোদনপ্রেমী দর্শকেরা। প্রথম সিরিয়ালেই দুর্দান্ত অভিনয় ক্ষমতার জেরে সাফল্যের মুখ দেখেন অভিনেতা। এরপর থেকে আর কোনোদিন পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি। অবশ্য শুধুই অভিনয় না, অভিনয়ের সাথে দুর্দান্ত গানও করতে পারেন তিনি।

আরও পড়ুনঃ ব্যস্ততা চিরসঙ্গী খড়কুটোর পটকার! অভিনয় জীবনে পাওয়ার সাথে হারানোর আফসোসও রয়েছে অম্বরীশের

এরপর মন্ত্রী ইন্দ্রনীল জানান, ‘আমি নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করি যে ওর মত একজন ছেলেকে আমি সুযোগ করে দিতে পেরেছি। নিজের প্রতিভার জেরে আজ ও এই জায়গায় পৌঁছাতে পেরেছে’। তবে প্রশংসার পাশাপাশি অম্বরীশ ভট্টাচার্য এখনও আসলে বড় হয়নি অর্থাৎ ছেলে মানুষ রয়ে গেছে সেটাও জানিয়েছেন ইন্দ্রনীল সেন।

Related Articles

Back to top button