গসিপবিনোদনসিনেমা

‘সাথিয়া’ রিজেক্ট করেছিলেন রানি! নাছোড়বান্দা যশ চোপড়া ধরে বেঁধে রাজি করিয়েছিলেন অভিনেত্রীকে

বলিউডের প্রথম সারির অভিনেত্রীদের মধ্যে অন্যতম হলেন রানি মুখার্জি। বিগত কয়েক দশক ধরেই বিভিন্ন সময়ে ছবিতে ভিন্ন স্বাদের ছবিতে অভিনয় করছেন দর্শকদের মন জয় করে চলেছেন অভিনেত্রী। একের পর এক হিট সিনেমা উপহার দিয়েছেন তিনি। বলিউডের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক প্রাপ্ত অভিনেত্রীদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন রানি। অভিনয় জীবনের লম্বা সফরে এখনও পর্যন্ত তিনি সাতটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার সহ একাধিক পুরস্কার লাভ করেছেন।

রানির কেরিয়ারের একটি মাইলস্টোন সিনেমা হল ২০০২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘সাথিয়া’। এই সিনেমায় রানি মুখার্জীর বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন বিবেক ওবেরয়। এছাড়া এই সিনেমায় বিশেষ উপস্থিতিতে তাক লাগিয়েছিলেন শাহরুখ খান এবং টাব্বু। পরিচালক শাদ আলি পরিচালিত এই রোম্যান্টিক এই ড্রামার প্রযোজনায় ছিলেন মণিরত্নম, যশ চোপড়ার যশরাজ ফিল্মস।

Rani Mukherjee রানী মুখার্জী

তবে প্রথমে নাকি এই ছবিতে অভিনয় করতেই রাজি ছিলেন না রানি মুখার্জী। আর একথা নাকি নিজের মুখে জানিয়েছিলেন রানি নিজেই। এপ্রসঙ্গে একবার সাক্ষাৎকারে রানি বলেছিলেন তার কেরিয়ারে এমনও সময় গিয়েছে যখন প্রায় আট মাস তার হাতে কোনও কাজ ছিলনা। আর ঠিক সেই সময়েই সাথিয়া-র অফার পান রানি।

আর খুব স্বাভাবিক ভাবেই সেই সময় কাজ প্রত্যাখ্যান করার বিষয়টা মেনে নিতে পারছিলেন না রানির মা কৃষ্ণা মুখার্জী। সেসময় নাকি সারাদিন বাড়িতে বসেই কাটাতেন রানি। এপ্রসঙ্গে অভিনেত্রী জানান সেসময়, একগুচ্ছ ম্যাগাজিনে সমালোচনাকারীরা বলেছিলেন, তাঁর কেরিয়ার শেষ হয়ে গেছে। যদিও তিনি সেসব পাত্তা না দিয়ে মনে মনে ঠিক করেই নিয়েছিলেন, সবাই সঠিক হতে পারে, তবে তিনি বশ্যতা শিকার করবে না।

 

রানির কথায়, ‘আমার মনে আছে, তখনই সাথিয়া-র অফার আসে। যশ আঙ্কেল (যশ চোপড়া) আমার মা-বাবাকে নিজের অফিসে ডাকে। আমার মা-বাবা গিয়ে একথাই বলে, রানি ছবিটা করতে ইচ্ছুক নয়। উনি আমাকে ফোন করে বলেন, বেটা তুমি জীবনে একটা বড় ভুল করতে চলেছ। আমি আমার ঘরের দরজা লক করছি। যতক্ষন পর্যন্ত রাজি হবে না তোমার মা-বাবাকে ঘর থেকে বেরোতে দেব না। আমি এটার জন্য তাঁকে ধন্যবাদ জানাতে চাই’।

Related Articles

Back to top button