গসিপবিনোদনসিনেমা

আরবাজ খানের সাথেই বুড়ি হওয়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন মালাইকা!ডিভোর্সের পর আজও রয়েছে বন্ধুত্ব

একসময় বলিউডের প্রথম সারির পাওয়ার কাপলদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন আরবাজ খান (Arbaz Khan) এবং মালাইকা আরোরা (Malaika Arora) । বছরের পর বছর একে অপরের সাথে সময় কাটিয়ে জীবনের নানান সুখ দুঃখের সাক্ষী হয়ে উঠেছিলেন তাঁরা। তাই একটা সময় তারা স্বপ্ন দেখতেন একে অপরের সাথে বৃদ্ধ হবেন তাঁরা। কিন্তু ভাগ্যের এমনই পরিহাস ১৮ বছরের সম্পর্ক ভেঙে এখন পথ আলাদা হয়েছে তাঁদের।

তবে শুরুটা রূপকথার চেয়ে কম ছিল না। প্রথম দেখাতেই একে অপরের প্রেমে পড়ে গিয়েছিলেন তাঁরা। একটি বিজ্ঞাপনের মডেলিং করতে গিয়ে মাত্র ১৮ বছর বয়সে মালাইকার প্রথম পরিচয় হয় আরবাজের সাথে। পুরনো এক সাক্ষাৎকারে, মালাইকা জানিয়েছিলেন যে বিজ্ঞাপনে একসাথে শুটিং করার আগেও, তিনি আরবাজকে দেখেছিলেন ।

 

তিনি জানান সেসময় অন্যান্যদের মতো তাঁর বোন অমৃতা অরোরাও ছিলেন সালমান খানের ফ্যান। এপ্রসঙ্গে মালাইকা বলেন ‘আমার বোন অন্য সব মেয়েদের মতই সালমানের জন্য পাগল ছিল। তখন সালমান একজন বড় সেলিব্রেটি ছিলেন। কিন্তু আমি যখন আরবাজকে দেখেছিলাম, আমি বোনকে বলেছিলাম, ‘তোমরা মেয়েরা সালমানকে পছন্দ করো তো? ঠিক আছে আমি আরবাজকে পছন্দ করি। ও আমার।’

এছাড়াও জানা যায় মালাইকাই আরবাজকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। আরবাজ তাকে কখনও প্রপোজ করেনি। মালাইকাই আরবাজের প্রেমে পাগল ছিলেন তাই তার সাথে দেখা হওয়ার আগে পর্যন্ত কারও সাথে ডেটিং করেননি। ১৯৯৮ সালের ১২ ডিসেম্বর একটি গির্জায় গিয়ে খ্রীস্টান মতে বিয়ে করেছিলেন তাঁরা।সব ঠিকই ছিল বিয়ের পর দুজনে সুখী দাম্পত্য জীবন যাপন করছিলেন। এছাড়া মালাইকা জানিয়েছিলেন আরবাজ দারুণ রোমান্টিক ছিলেন।

Malaika Arbaz Arhan

উদাহরণ দিতে গিয়ে মালাইকা বলেন ‘ও আমার জন্য রোমান্টিকভাবে অনেক কিছুই করেছে, কিন্তু একটা জিনিস আছে যা তিনি সবসময় বলতেন তা হল, ‘বাবু আমরা একসঙ্গে বুড়ো হয়ে যাচ্ছি।’ কিন্তু নানা সমস্যার কারণে ১৮ বছরের দাম্পত্য জীবনের অবসান ঘটিয়ে ২০১৭ সালে ডিভোর্স হয়ে যায় তাঁদের। এখন তাঁদের দুজনের জীবনেই এসেছে নতুন মানুষ। তবে ডিভোর্সের পরেও তাদের মধ্যে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রয়েছে। তাঁরা দুজনেই ছেলে আরহানের দেখাশোনার দায়ীত্ব পালন করছেন।

Related Articles

Back to top button