খবরভাইরাল

পৃথিবী উল্টে গেলেও বৌ চাই! বন্যার মধ্যেই নৌকায় চড়ে বিয়ে করতে হাজির বৌপাগল বর

করোনা (Corona) আবহে পরিস্থিতির চাপে অনেকের যেমন বিয়ে পিছিয়েছে,তেমনি অনেকে আবার ভার্চুয়াল বিয়েও সেরেছিলেন,এছাড়া কোভিড বিধি মেনে পিপিই কিট (PPE Kit) পরেও সাতপাক ঘুরতেও দেখা গিয়েছিল নব দম্পতিকে। এমনকি লকডাউন উপেক্ষা করে ১০০ কিলোমিটার সাইকেল চালিয়েও বিয়ে করতে গিয়েছিলেন এক যুবক। অতীতে এমনই নানান বাধা বিপত্তিকে তুচ্ছ করেই বিয়ের পিঁড়িতে বসে শিরোনামে এসেছিলেন একাধিক নবদম্পতি। তবে বন্যার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ কে উপেক্ষা করে ১০ কিমি পথ নৌকা চালিয়ে (Boating) বিয়ে করতে যাওয়ার ঘটনা বোধ হয় এই প্রথম।

রবিবার সকালে এমন কান্ডটিই ঘটিয়েছেন হুগলীর খানাকুলের (KhanaKul) রাজহাটি ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের হিরাপুর গ্রামের বাসিন্দা খন্দকার আমিরুল হক (Amirul Hoque)। উল্লেখ্য আরামবাগ মহকুমার মধ্যে খানাকুল দু’নম্বর ব্লকের পাশ দিয়ে বয়ে গিয়েছে রূপনারায়ণ নদ। গত কয়েকদিনের বৃষ্টির জেরে ডিভিসি থেকে জল ছাড়ায় স্থানীয় ধান্যগড়ি এলাকায় শনিবার রাতে নদীর বাঁধ ভেঙে যাওয়ায় পুরো এলাকা বন্যা কবলিত হয়ে পড়ে। যার জেরে কার্যত জলের তলায় চলে যায় অসংখ্য মানুষের ঘর সংসার।

পাত্র আমিরুলের বাড়িও ওই বানভাসি এলাকা অন্তর্গত হীরাপুরে। সেখান থেকেই ১০ কিমি দূরে অবস্থিত শাবলসিংহপুর। সেখানেই বাড়ি পাত্রীর। সেখানকার অবস্থা আরও ভয়ংকর। জল থৈ থৈ অবস্থায় ভাসছে গোটা গ্রাম। এরই মধ্যে প্রায় ২ মাস আগে পেশায় সেলাই মিস্ত্রি আমিরুল হকের সঙ্গে শাবলসিংহপুর গ্রামের বাসিন্দা হাসিনা খাতুনের বিয়ে ঠিক হয়েছিল।‌ সেইমতো বিয়ের আয়োজন করা হলেও মাঝখান থেকে বাধ সাধে বন্যা।

কিন্তু বর আমিরুল এক কথার মানুষ। ওই নির্ধারিত দিনেই বিয়ে করবেন বলে ঠিক করেছেন তিনি। পাত্রীর বাড়ির আয়োজন যাতে নষ্ট না হয় তাই বন্যার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগকে উপেক্ষা করেই নৌকায় চেপেই বিয়ে করতে গেলেন পাত্র আমিরুল। গায়ে শেরওয়ানি, মাথায় নকশি টুপি পরেই গেলেন বিয়ে করতে। পাত্রের কথায় যাই হয়ে যাক না কেন বিয়ে আটকাবে না। তাই বিয়ের আয়োজন কমিয়ে ছোটো করেই নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই বিয়ে সারলেন তিনি।

জানা গেছে রবিবার সকালে প্রথমে বাড়ি থেকে দু’টি নৌকায় ১৫ জন বরযাত্রী নিয়ে রওনা দিয়েছিলেন পাত্র পক্ষ। প্রথমে তারা হাজির হন স্থানীয় রাজহাটি গ্রামে। সেখানে আগে থথেকেই অপেক্ষারত কন্যাপক্ষের দু’টি নৌকা ছিল। সেই নৌকায় চেপেই কনের বাড়ির দরজায় পৌঁছায় বরপক্ষ। এরপর তাড়াতাড়ি বিয়ের অনুষ্ঠান সেরে দিনের আলো থাকতেই বউ নিয়ে বাড়ি ফিরে আসেন আমিরুল।

Related Articles

Back to top button