ছোট বেলা থেকেই শুনে আসছি মোটা শব্দটা, ফিগারই সব! বডিশেমিং-এর বিরুদ্ধে গর্জে উঠলেন বিদ্যা


বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী বিদ্যা বালান এই বয়সেও তার গ্ল্যামার ধরে রেখেছেন। একের পর এক হিট ছবিতে দুর্দান্ত অভিনয় করে দর্শকদের মন জিতে নিয়েছেন অভিনেত্রী। এবং তার অভিনয় মানেই হটকে কিছু। কেরিয়ারের শুরুটা বিশেষ জমেনি অভিনেত্রীর৷ একাধিক মিউজিক ভিডিও থেকে বিজ্ঞাপনের কাজ করেও সফলতা পাচ্ছিলেন না অভিনেত্রী।

বিদ্যার অভিনয় জগতে পরিচয় বাংলা ছবির হাত ধরেই। পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে ২০০৩ সালে ‘ভালো থেকো’ ছবি দিয়েই তার আত্মপ্রকাশ। এরপর একে একে, পরিনীতা, ডার্টি পিকচার, কাহানি মতো ছবিতে ব্যতিক্রমী অভিনয় করে নিজের জাত চিনিয়ে দেন বিদ্যা।

এদিকে তিনি বিয়ে করেছেন সিদ্ধার্থ রায়কে। ৮ বছরের দাম্পত্য জীবনে জমিয়ে সংসার করছেন অভিনেত্রী। পাশাপাশি চলছে অভিনয়ের কাজও। আজকাল পর্দায় একটু কমই দেখা যায় বিদ্যাকে। তবে তিনি যখন পর্দায় আসেন তখন মাত করে দেন।

কিন্তু অভিনয়ে দক্ষ হলেও ভারী চেহারার জন্য আজও কথা শুনতে হয় অভিনেত্রীকে। যেখানেই যান সেখানেই প্রথম কথা “ওমা আগের চেয়ে খানিক রোগা হয়েছ”, অথবা ” আবার “ওজন বেড়েছে না”, সমাজে দীর্ঘদিন থেকে চলে আসা এই বডি শেমিং নিয়ে এবার আওয়াজ তুললেন বিদ্যা, বললেন, সবটাই যেন ফিগার। এর বাইরে সৌন্দর্যের কোনোও সংজ্ঞাই খুঁজে পাননা মানুষ।

দারুণ অভিনয়, অসংখ্য গুণ থাকা সত্ত্বেও বলিউডের এক নম্বর অভিনেত্রী তিনি হতে পারেননি, কারণ তার চাবুক ফিগার নেই৷ ছোট থেকেই তিনি শুনে এসেছেন মোটা শব্দটা। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এই নিয়ে সরব হয়েছিলেন বিদ্যা বানাল। তাঁর মতে বর্তমানে যে ট্রেন্ড চলছে তা সঠিক নয়।

বিদ্যা বালন Vidya Balan

বিদ্যা সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে জানান রোগা হওয়া বা জিম করা যদি কেবল সুস্থ থাকার জন্য হয় তবে তার আপত্তি নেই৷ কিন্তু কারোর চোখে পারফেক্ট দেখানোর জন্য রোগা হতে চাওয়ার মধ্যে কোনো কারণ খুঁজে পাননা বিদ্যা। বিদ্যার কথায় শরীর ঠিক যেমন তেমনটাই রাখা উচিত। নিজের অমতে বা কষ্ট করে তা লোকের জন্য সুন্দর করে তোলার প্রয়োজন নেই।