বিনোদনসিরিয়াল

ক্লাস ২-তেই অভিনয়ে হাতে খড়ি, ‘জন্মভূমি’ সিরিয়ালের অভিনেত্রী, আজ বোধিস্বত্বের কাকিমা

বাংলা টেলিভিশন জগতের এক অন্যতম পরিচিত অভিনেত্রী হলেন সমতা দাস। খুব অল্প বয়স থেকেই ইন্ডাস্ট্রিতে শিশু শিল্পী (Child Artist) হিসেবেই অভিনয়ের যাত্রা শুরু হয়েছিল তার। যখন তিনি ক্লাস টু তে পড়তেন তখন থেকেই  প্রথম অভিনয়ে হাতেখড়ি হয়েছিল অভিনেত্রীর। বাংলার জনপ্রিয় কালজয়ী ধারাবাহিক ‘জন্মভূমি’ (Janmabhumi) তে প্রথম অভিনয় করেছিলেন তিনি।

পরবর্তীতে ‘এক আকাশের নিচে’ (Ek Akasher Niche) সিরিয়াল থেকে বাংলার ঘরে ঘরে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিলেন পর্দার টুসকি (Tuski)। তবে রি সিরিয়াল শেষ হওয়ার পর বহুদিন অভিনয় থেকে বিরতি নিয়েছিলেন তিনি। তার পিছনে যদিও কারণ রয়েছে। আসলে জানা যায় সে সময় হাই সেকেন্ডারি পরীক্ষার পরেই বিয়ে করে নিয়েছিলেন নায়িকা। তাই ওই সময়টা তিনি ক্যারিয়ারে ফোকাস করতে পারেননি।

বহুদিন পর বাংলা টেলিভিশনের পর্দায় ‘করুণাময়ী রানী রাসমণি’ সিরিয়ালে রাসমনির শাশুড়ি চরিত্র দেখা গিয়েছিল তাকে। আর এখন জি বাংলা দুটি জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘গৌরী এলো’তে নায়িকা গৌরির মায়ের চরিত্রে এবং ‘বোধিসত্ত্বের বোধ বুদ্ধি’ (Bodhiswatter Bodh Budhi) সিরিয়ালে বোধিসত্ত্বের কাকিমার  চরিত্রে দেখা যাচ্ছে অভিনেত্রীকে। তবে যে সময়টা তার নায়িকা হওয়ার বয়স ছিল সেই সময় তিনি অভিনয় থেকে অনেকটা দূরে ছিলেন। তাই এখন তাকে বেশিরভাগ সময় দেখা যায় মা-কাকিমার চরিত্রে।

কিন্তু তাতে আপত্তি নেই অভিনেত্রীর। কারণ অভিনয়ের সুযোগ থাকলে তিনি চরিত্রের বাছ -বিচার করেন না।  তাই বলে কি তার কাছে নায়িকা হওয়ার অভিনয় নায়িকা চরিত্রে অভিনয় করার অফার আসেনি? এ বিষয়ে সংবাদ মাধ্যমে মুখ খুলে ছিলেন অভিনেত্রী। তিনি জানিয়েছেন সবকিছুর একটা সময় থাকে। আর মেয়েদের ক্ষেত্রে নায়িকা হওয়ার জন্য উপযুক্ত বয়স হচ্ছে ১৫ থেকে ২৫ বছর। আর এই সময়টাই নাকি তিনি মনোযোগ দিতে পারেননি নিজের কেরিয়ারে।

আসলে সমতা জানিয়েছেন তার পরিবারের লোক ভীষণ রক্ষণশীল মানসিকতার। তাই সেই সময় তিনি যে প্রেম করছিলেন সে কথা বাড়িতে জানাননি। শুধু তাই নয় সে সময় প্রেম করে তিনি পালিয়ে বিয়েও করে নিয়েছিলেন। এই ঘটনায় খুবই দুঃখ পেয়েছিলেন অভিনেত্রীর মা বাবা। তাই ওই অল্প বয়সে পালিয়ে বিয়ে করে সে সময় অনেক কটাক্ষের মুখে পড়তে হয়েছিল অভিনেত্রীকে।

অনেকেই বলেছিলেন অল্প বয়সে বিয়ে করে অভিনায় আর ফিরতে পারবেন না তিনি। কিন্তু সমতার মনে ছিল অভিনয়ের প্রতি অগাধ ভালোবাসা সেই সাথে ছিল নিজের প্রতি অগাধ আত্মবিশ্বাস।তাই তিনি বিয়ের পরেও  ফিরে এসেছেন টেলিভিশনের পর্দায়। অভিনেত্রী মনে করেন বিয়ের সাথে কাজের সম্পর্ক নেই।  আর ভালোবাসা না থাকলে এই অভিনয়ের মতো প্রফেশনে টিকে থাকা মুশকিল।

Related Articles

Back to top button