বিনোদনভিডিওসিরিয়াল

মাকে মৃত্যুশয্যায় রেখে শুটিং, মাঝপথেই বাদ সিরিয়াল থেকে! রইল অভিনেত্রী শ্রীপর্ণা রায়ের অজানা কাহিনী

বাংলা সিরিয়ালের অত্যন্ত পরিচিত একজন অভিনেত্রী হলেন শ্রীপর্ণা রায় (Sriparna Roy)। চলতি বছরেই জি বাংলার পর্দার শেষ হয়েছে শ্রীপর্ণা অভিনীত জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘কড়িখেলা’(Korikhela)। এই সিরিয়ালে তার চরিত্রের নাম হয়েছিল পারমিতা (Paromita)। ছেলের ভবিষ্যতের কথা ভেবে মাঝ বয়সে এসে পুনর্বিবাহের গল্প নিয়ে তৈরি হয়েছিল এই সিরিয়ালের গল্প।কিন্তু সিরিয়ালের বয়স বেশিদিন না হলেও কম টিআরপির কারণে শেষ করে দেওয়া হয় এই সিরিয়াল।

তবে অল্পদিনেই দর্শকদের মনে বেশ পাকাপাকিভাবে জায়গা করে নিয়েছেন অভিনেত্রী। প্রসঙ্গত এটাই অভিনেত্রীর প্রথম সিরিয়াল নয় এর আগেও তিনি অভিনয় করেছেন একাধিক সিরিয়ালে। তাই টিভির দর্শকদের কারও কাছে তিনি কখনও পারমিতা,কিংবা টুসু, আবার কখনও পিকু,ফুলকি, অথবা পার্বতী। তবে বরাবরই দর্শকদের আগ্রহ থাকে অভিনেতা-অভিনেত্রীরা বাস্তব জীবনে কেমন তা জানার। তাই সম্প্রতি নিজের জীবনের নানা অজানা কথা (Unknown Fact) নিয়ে জোশ টকস নামে একটি ইউটিউব চ্যানেলে হাজির হয়েছিলেন অভিনেত্রী।

Sriparna Roy Kori Khela

শ্রীপর্ণা জানিয়েছেন ছোট থেকেই তার শখ ছিল অভিনয় করার। তাই নিজেই ঘরের মধ্যে নিজের ছোট একটা ডিজিটাল ক্যামেরা অন করে নিজের মনের মত অভিনয় করা শুরু করে দিতেন। এছাড়া টিভিতে বিভিন্ন ধরনের অ্যাড দেখেও তার নকল করতেন তিনি।তাই শুরু থেকেই অভিনয়ের প্রতি তার এতটাই আগ্রহ ছিল যে ক্যামেরা দেখলেই পাগলের মতো অভিনয় করতে শুরু করতেন তিনি।তা সে বিয়ে বাড়ির ক্যামেরা হোক কিংবা অন্য যে কোন কোথাও। এমনকি বাড়িতে কোন অতিথি আসলেও তাদেরকেও  ক্যামেরা ধরিয়ে দিতেন শুট করার জন্য।অবশেষে গ্রাজুয়েশন চলাকালীন সিরিয়ালের জন্য অডিশন দিতে চলে গিয়েছিলেন শ্রীপর্ণা।

সে সময় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা প্রায় ৫০০ জন অংশগ্রহণকারীর মধ্যে সিলেক্টেড হয়েছিলেন তিনি। সেই পথ চলা শুরু। আর আজ তিনি বাংলা টেলিভিশন জগতের অন্যতম জনপ্রিয় একজন অভিনেত্রী। শ্রীপর্ণাকে এক ডাকে চেনেন সকলেই। তবে নিন্দুকরা বলে থাকেন অভিনয় অত্যন্ত সহজ একটি পেশা। এখানে নাকি কাজের পরিমাণটা খুবই কম।  তাদের সকলকে এক হাত নিয়েছেন অভিনেত্রী।

Unknown

প্রসঙ্গত অভিনেত্রীর মা নেই।  অনেকদিন আগেই নিজের মাকে হারিয়েছেন শ্রীপর্ণা। তাই এখন বাবাকে নিয়েই তার ছোট্ট পরিবার। এদিন মাকে হারানোর চরম কঠিন পরিস্থিতির কথা শেয়ার করেছেন শ্রীপর্ণা। সে সময় শ্রীপর্ণার মা যখন হাসপাতালে শয্যাশায়ী ছিলেন ডাক্তাররাও যখন জবাব দিয়ে দিয়েছিলেন আর কিছু করার নেই, সে সময় প্রতিদিন মাকে এক প্রকার মৃত্যু শয্যায় ফেলে রেখে শুটিংয়ে এসে প্রতিদিন হা করে হাসতে হয়েছে অভিনেত্রীকে। তাই শ্রীপর্ণার কথায় যারা মনে করেন অভিনয়টা সহজ তাদের উদ্দেশ্যে শ্রীপর্ণা বলেছেন ‘অভিনয়টাও করতে হয়’।মা আর বেশিদিন নেই জেনেও  ওরকম প্রচন্ড একটা ইমোশনাল মুহূর্ত নিজের মনের দুঃখটাকে দূরে সরিয়ে রেখে  মুড সুইং করে একেবারে পেশাদারদের মতো নিজের ১০০ শতাংশ দিয়ে অভিনয় করাটা তাই একেবারেই সহজ নয়।

একবার একটি সিরিয়াল থেকে মাঝ পথেই তাকে বাদ দিয়ে দেওয়া হয়েছিল শ্রীপর্ণাকে। কারণ হিসেবে বলা হয়েছিল তার জন্য নাকি  সিরিয়ালের টিআরপি উঠছে না।  সে সময় মানসিকভাবে ভীষণই ভেঙে পড়েছিলেন শ্রীপর্ণা। যদিও পরবর্তীতে তিনি নিজেই আবার ঘুরে দাঁড়িয়ে ছিলেন অভিনয় করেছিলেন সেই চ্যানেলেই।  প্রসঙ্গত কড়ি খেলা শেষ হওয়ার পর বেশ কিছুদিন ধরেই  টিভির পর্দায় দেখা যাচ্ছে না অভিনেত্রীকে। তবে ইতিমধ্যে জি বাংলার রান্নাঘরে সুদিপার পরিবর্তে বেশ কিছুদিন শো সঞ্চালনা করতে দেখা গিয়েছিল অভিনেত্রীকে।

Related Articles

Back to top button