বিনোদনভাইরালভিডিওসিরিয়াল

সন্দেশ এখন অতীত ! মোমো আর চিকেনের পর বাজারে এসে গেল উচ্ছেবাবু ফুচকা

ফুচকা শুধু খাবার নয় একটা ইমোশন। ফুচকা প্রেমীরাই একমাত্র একথার মর্ম বুঝবেন। অন্যদিকে সিরিয়াল পাগল দর্শকদের বিনোদনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল সিরিয়াল। দুটোই মানুষের কাছে এক প্রকার নেশার মতো।  এবার এই  ফুচকা আর সিরিয়াল হয়ে গেল একেবারে মিলেমিশে একাকার। এই পর্যন্ত পড়ে অনেকেই হয়তো ভাবছেন সিরিয়াল নিয়ে লেখার মধ্যে হঠাৎ ফুচকা এল কোথা থেকে? সবটাই  বলছি, কিন্তু তার আগে বলে নেওয়া যাক আরও কিছু কথা।

প্রসঙ্গত বাংলা সিরিয়াল প্রেমীদের কাছে ইদানিং অত্যন্ত জনপ্রিয় সিরিয়াল হল জি বাংলার ‘মিঠাই’। নামটাই যথেষ্ঠ , দর্শকদের কাছে এই সিরিয়ালের জনপ্রিয়তা নিয়ে নতুন করে আর কিছুই বলার নেই। এই সিরিয়ালের মিষ্টি নায়িকা মিঠাই -এর  চরিত্রে অভিনয় করছেন টেলি অভিনেত্রী সৌমিতৃষা কুন্ডু আর হ্যান্ডসম উচ্ছেবাবু অর্থাৎ সিদ্ধার্থের চরিত্রে অভিনয় করছেন আদৃত রায়।

শুরু থেকেই এই জুটিকে দর্শকরা নিজেদের নয়নের মণি করে রেখেছেন। এই সিরিয়ালের সুবাদে গোটা বাংলা জুড়ে আলাদাই ফ্যান বেস রয়েছে মিঠাইরানমির কার্তিক ঠাকুরের। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ফ্যান পেজ থেকে শুরু করে মিঠাইয়ের শুটিং ফ্লোর অর্থাৎ ভারতলক্ষি স্টুডিওর বাইরে উঁকি দিলেই তার প্রমাণ মেলে হামেশাই।

Mithai Serial Adrit Roy Soumitrisha Kundu

এমনিতে সিনেমা কিংবা সিরিয়ালের তারকাদের নিয়ে ভক্তদের কৌতূহলের অন্ত নেই। ব্যতিক্রম নন মিঠাই সিরিয়ালের তারকারাও। বিশেষ করে সিরিয়ালের নায়ক তথা বাংলার অসংখ্য তরুণীর ক্রাশ উচ্ছে বাবুকে নিয়ে তো অনুরাগীদের কৌতূহলের কুলকিনারা নেই।  প্রসঙ্গত এই সিরিয়ালের নিয়মিত দর্শক যারা তারা সকলেই জানেন হেলদি হেঁশেলের কম্পিটিশন জেতার জন্য উচ্ছেবাবু সন্দেশ বানিয়ে তাক  লাগিয়ে দিয়েছিল মিঠাই।

সেই দেখা দেখি দর্শকদের মধ্যেও তৈরি হয়, উচ্ছেবাবু সন্দেশ বানানোর প্রবণতা।  একটা সময় বাংলার একাধিক মিষ্টির দোকানেও পাওয়া যাচ্ছিল এই  উচ্ছেবাবু সন্দেশ। এরপর কখনো উচ্ছেবাবু চিকেন তো কখনো উচ্ছেবাবু মোমো তৈরি করার একাধিক ছবি কিংবা ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

এবার মিঠাই ভক্তদের জন্য এসে গিয়েছে অভিনব উচ্ছেবাবু ফুচকা (Uchebabu Phuchka)। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ফুড ব্লগের তরফে শেয়ার  করা হয়েছে এমনই  একটি ভিডিও।  যেখানে দেখা যাচ্ছে সবুজ রঙের ফুচকা তৈরি হচ্ছে একটি ফুচকা তৈরীর কারখানায়। সেই ফুচকা আবার ঠেলায় করে রাস্তার ধারে নিয়ে আসতেই লোকজন এসে সেই ফুচকা খেয়ে যাচ্ছেন  মন প্রাণ ভরে।

Related Articles

Back to top button