বিনোদনসিরিয়াল

‘পরশুই বকাবকি করেছিলাম, শরীরের যত্ন নিত না’ ‘ড্যাডি’কে হারিয়ে ভেঙে পড়ল গুনগুন অভিনেত্রী তৃণা

সকালে ঘুম ভাঙতেই দুঃসংবাদ মিলল বাংলা বিনোদন জগৎ থেকে। প্রয়াত হয়েছেন অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায় (Abhishek Chatterjee)। নব্বইয়ের দশক থেকে এপর্যন্ত টলিউডের একাধিক সিনেমা থেকে সিরিয়ালে অভিনয় করেছেন অভিনেতা। তাঁর আকস্মিক প্রয়াণের খবরে রীতিমত শোকস্তব্ধ হয়ে পড়েছে টলিপাড়া। ‘খড়কুটো’ সিরিয়ালে গুনগুন এর ড্যাডির চরিত্রে অভিনয় করছিলেন অভিনেতা। তাঁর প্রয়াণের পর কান্নায় ভেঙে পড়লেন গুনগুন অভিনেত্রী তৃণা সাহা (Trina Saha)।

প্রায় বিগত দুবছর ধরে পর্দায় গুনগুনের বাবার চরিত্রে অভিনয় করছিলেন অভিষেক চ্যাটার্জী। তবে পর্দার সাথে বাস্তবের মিলটা খুব একটা আলাদা ছিল না। বাবা মেয়ের মতোই সম্পর্ক তৈরী হয়ে গিয়েছিল। এদিন অভিনেতার মৃত্যুর খবর শোনার পর অভিনেত্রী কান্নায় ভেঙে পড়েছেন। হটাৎ করেই এমন একটা খারাপ খবর পেতে পারেন এমনটা ভাবতেও পারেননি তিনি।

সংবাদ মাধ্যমের তরফ থেকে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি জানান, ‘পর্দায় অভিষেকটা আমার ড্যাডির চরিত্রে ছিলেন। তবে পর্দার বাইরেও আমার ড্যাডির মতই ছিলেন। পরশু দিনেই শুটিংয়ের সময় বকাবকি করেছি।শরীরের একদম যত্ন নিচ্ছিলেন না’।  এছাড়াও অভিনেত্রীর মতে, দীর্ঘদিন ধরেই পেটের সমস্যায় ভুগছিলেন। লিভারেও সমস্যা ছিল, তবে অসুস্থতা নিয়েই কাজ করেন।

Trina Saha Mistake Olympic Gold Medal winner Neeraj Chopraname

তৃণা জানান, পরশুদিন  যখন শুটিং ফ্লোরে অভিষেকদা অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন তখন আমরা ওনাকে বিশ্রাম নেওয়ার জন্য বলি। দুলাল লাহিড়িকে ডেকে আনা হয়েছিল, সেই সময় বমি করে ফেলেন অভিষেকদা। এরপর আমরাই ডাক্তার দেখতে নিয়ে যাই। ডাক্তার দেখানো হলে বাড়ি পাঠিয়ে দিই। এমনকি এই অবস্থাতেই কালকের শুটিং ও শেষ করলেন। তারপর ফোনে মানুষটাকে বকাবকিও করেছিলাম’।

প্রসঙ্গত, গতকাল অর্থাৎ বুধবার একটি রিয়ালিটি শোয়ের শুটিংয়ের সময়েই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। এরপর কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয়ে প্রয়াত হয়েছেন অভিনেতা। তাঁর প্রয়াণে শোকস্তব্ধ হয়ে পড়েছে গোটা বাংলা বিনোদন জগৎ। টলিউডের তারকারা তাঁর মৃত্যুতে শোকজ্ঞাপন করেছেন। আমরাও অভিনেতার আত্মার চিরশান্তি কামনা করি বংট্রেন্ডের পক্ষ থেকে।

Related Articles

Back to top button