গসিপবিনোদন

শেষ দিন জ্ঞান ফিরেছিল ঐন্দ্রিলার! অভিনেত্রী প্রয়াত হওয়ার ৪ দিন পর প্রথমবার মুখ খুললেন চিকিৎসক

সত্যিকারের ‘ফাইটার’ ঐন্দ্রিলা শর্মা (Aindrila Sharma)। দু’বার ক্যান্সারকে পরাজিত করে জয়ী হয়েছিলেন, কিন্তু তৃতীয়বার পারেননি। তবে শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত লড়াই করে গিয়েছেন তিনি। এমনকি হাসপাতালে ভর্তির ২০তম দিনে জ্ঞানও ফিরেছিলেন ঐন্দ্রিলার। অভিনেত্রীর মৃত্যুর ৪ দিন পর প্রথমবার মুখ খোলেন তাঁর দীর্ঘদিনের চিকিৎসক (Aindrila Sharma doctor)।

সম্প্রতি একটি নামী সংবাদমাধ্যমের হয়ে কলম ধরেন ঐন্দ্রিলার চিকিৎসক। সেখানেই অভিনেত্রীর জীবনের শেষ দিনগুলি নিয়ে বেশ কিছু অজানা তথ্য সামনে এনেছেন তিনি। সেই সঙ্গেই ২৪ বছরের ‘ফাইটার’ ঐন্দ্রিলাকে কুর্নিশও জানিয়েছেন তিনি।

Aindrila Sharma

‘জিয়ন কাঠি’ অভিনেত্রীর চিকিৎসকের কথায়, ‘শুধুমাত্র নিজের মনের জোরে একজন মানুষ কীভাবে নিজেকে মৃত্যুর মুখ থেকে বারবার ফিরিয়ে এনেছে আমি তার সাক্ষী। আমায় কখনও বলতে হয়নি ‘ফাইট ঐন্দ্রিলা ফাইট’।

সেই সঙ্গেই ঐন্দ্রিলার লড়াকু মানসিকতাকে কুর্নিশ জানিয়েছেন তাঁর চিকিৎসক। বিশেষজ্ঞের কথায়, শুধুমাত্র দুর্বল মনের হওয়ার জন্য বহু ক্যান্সার রোগী জীবনযুদ্ধে পরাজিত হন। কিন্তু ঐন্দ্রিলা ছিলেন ব্যতিক্রমী। দু’বারই সেই জন্য হাসিমুখে এই কঠিন লড়াই জিতে ফিরেছিলেন।

Aindrila Sharma in hospital

২০১৫ সালে প্রথমবার টলি অভিনেত্রীর শরীরে ক্যান্সার বাসা বাঁধার কথা জানা গিয়েছিল। সেই বার অস্থিমজ্জার ক্যান্সার হয়েছিল তাঁর। সেই লড়াইয়ের কয়েক বছর পর, ২০২১ সালে ফের তাঁর শরীরে থাবা বসায় মারণ রোগ। এবার ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হন তিনি। ঐন্দ্রিলার চিকিৎসক জানিয়েছেন, দ্বিতীয়বারের অপারেশন এতটাই জটিল ছিল যে অপারেশন টেবিলেই তাঁর মৃত্যু হতে পারত। কিন্তু তাও সেই লড়াইয়ে জয়ী হয়ে ফিরেছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মস্তিষ্কের রক্তক্ষরণের কাছে হেরে যান অভিনেত্রী।

ঐন্দ্রিলার চিকিৎসক জানান, স্ট্রোক হওয়ার পর প্রচণ্ড কাহিল হয়ে পড়েছিল ঐন্দ্রিলার শরীর। তবে ২০ দিন ধরে প্রচণ্ড লড়াই করেছেন অভিনেত্রী। কখনও তাঁর শরীর চিকিৎসায় সাড়া দিয়েছে। আবার কখনও অবস্থার অবনতি হয়েছে। তিনি জানান, ক্যান্সারের জন্য ঐন্দ্রিলার ব্রেনের ভেসেল প্রচণ্ড ভঙ্গুর হয়ে গিয়েছিল।

Tollywood actress Aindrila Sharma health update, actress is not moving her body

টলি অভিনেত্রীর বায়োপসি করার পর দেখা যায়, ক্যান্সার কোষের সংখ্যাও বাড়ছে। হাসপাতালে ভর্তি ২০তম দিন অর্থাৎ মারা যাওয়ার দিন ঐন্দ্রিলার জ্ঞানও ফিরেছিল। কিন্তু সে কথা বলতে পারেনি। কারণ তাঁর মুখে পাইপ ছিল। তবে অভিনেত্রীর শরীর বারবার সাড়া দিচ্ছিল। তবে তা সত্ত্বেও শেষ রক্ষা হয়নি। রবিবার দিনই বেলা ১২:৫৯ মিনিটে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন ‘জিয়ন কাঠি’ অভিনেত্রী।

Related Articles

Back to top button