গরমে শরীর সুস্থ রাখতে লাঞ্চে রাখুন টক ডাল! রইল রেসিপি এবং গুনাগুন


বৈশাখ, চৈত্রের এই সময়টাতে খরতাপে পুড়ছে দেশ। গরমে স্বস্তি আনতে কেউ খাচ্ছেন ঠাণ্ডা খাবার। আর কেউবা টক ফল খেয়ে গরম থেকে মুক্তি পেতে চাইছেন। এখন গাছে গাছে ঝুলছে কাঁচা আম। বাজারেও মিলছে তা। মৌসুমের এই কাঁচা আম দিয়ে খেতে পারেন ভিন্ন স্বাদের টক ডাল। এটি যেমন খেতে সুস্বাদু তেমনি পুষ্টিগুণেও ভরা।

সকাল কিংবা দুপুরের খাবারে ভাতের সঙ্গে আমের টক ডাল হতে পারে এই সময়ের অন্যতম মেন্যু। অনেকে মনে করেন আম দিয়ে ডাল রান্না করলে বুঝি এর পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়ে যায়। কিন্তু এই ধারণা ভুল। মসুর ডাল দিয়ে আমের টক ডাল রান্না করলে এর পুষ্টিগুণ নষ্ট হয় না বরং পুষ্টিগুণ অটুট থাকে। এই টক ডাল হজমের জন্য যেমন সহায়ক তেমনি এটি সহজপাচ্য। টক ডাল গরমের ক্লান্তি কাটাতেও সাহায্য করে। এছাড়াও গরমের সময় অরুচি কাটাতেও সহায়ক টক ডাল। তাহলে চলুন শিখে নেওয়া যাক কীভাবে বানাবেন কাঁচা আমের টক ডাল।

উপকরণ –

কাঁচা আম- ২টি/
মসুর ডাল- ১ কাপ/
মুগ ডাল- ১ কাপ/
পাঁচফোড়ন- আধা চা চামচ/
লবণ- স্বাদ মতো/
চিনি- সামান্য/
শুকনা মরিচ- ৪-৫টি/
হলুদ গুঁড়া- ১ চা চামচ/
জিরা- আধা চা চামচ/
সরিষার তেল- আধা চা চামচ/
লেবু- অর্ধেকটি

পদ্ধতি-

আমের খোসা ছাড়িয়ে টুকরা করে কেটে লবণ ও সামান্য হলুদ দিয়ে মেখে রেখে দিন। মসুর ডাল ও মুগ ডাল ধুয়ে লবণ-হলুদ দিয়ে প্রেশার কুকারে সেদ্ধ করে নিন। কড়াইয়ে সরষের তেল গরম করে পাঁচফোড়ন, শুকনা লঙ্কা ও জিরা ফোড়ন দিন। আমের টুকরোগুলো ফোড়নের মধ্যে দিয়ে সামান্য ভেজে নিন। সেদ্ধ করে রাখা ডাল দিয়ে স্বাদ মতো লবণ ও চিনি দিন। প্রয়োজন অনুযায়ী জল দিয়ে ডাল ফুটতে দিন। লেবু কেটে ডালের উপরে ছড়িয়ে নামিয়ে নিন মজাদার টক ডাল।