গসিপবিনোদন

যাকে ভালোবেসে কেরিয়ারে সাফল্যের শিখরে উঠেছিলেন,তার জন্যই এই কারণে ডুবেছিল ঐশ্বর্যের জীবন!

বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রীদের একজন ঐশ্বর্য রাই (Aishwarya Rai)। মিস ওয়ার্ল্ড ঐশ্বর্যের সৌন্দর্যের কোনোও বিকল্প পাওয়া যায়নি । ঐশ্বর্য রাই ১৯৯৭ সালে মিস ওয়ার্ল্ড খেতাব জিতেছিলেন। এরপরে তিনি অভিনয়কেই তার কেরিয়ার হিসাবে বেছে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তারপর ‘অর অর পেয়ার হো গয়া’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হয় তার। প্রথম ছবিতে সেভাবে সাফল্যের মুখ না দেখলেও, তার পরবর্তী ছবি সঞ্জয় লীলা বনসালির পরিচালনায় ‘হাম দিল দে চুকে সনম’ তুমুল হিট হয়েছিল।

এরপর থেকে বিশ্ব সুন্দরী ঐশ্বর্য রাই বলিউডের শীর্ষ অভিনেত্রীদের একজন হয়ে ওঠেন। কিন্তু তার পরেই ঐশ্বর্যর জীবনে মোড় আসে যা তার জীবন বদলে দেয়। তার সবচেয়ে বড় চলচ্চিত্রগুলির মধ্যে একটি ছিল ‘হাম দিল দে চুকে সনম’, এর কারণে ঐশ্বর্য সাফল্যের শিখরে পৌঁছেছিলেন কিন্তু তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও এর জেরে তুমুল আলোড়ন সৃষ্টি হয়।

Salman Khan সালমান খান Aishwarya Rai

আসলে এই ছবিতে তার সহশিল্পী ছিলেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা সালমান খান। এই ছবির শুটিং চলাকালীনই সালমানের ঘনিষ্ঠ হন ঐশ্বর্য। এমনকি দুজনের প্রেমও হয়। ছবিটি শেষ হতে না হতেই দুজনের সম্পর্কের আলোচনা শুরু হয়। সে সময় সর্বত্র শুধু ঐশ্বর্য ও সালমান নিয়েই আলোচনা হচ্ছিল। মানুষও দুজনের জুটিকে খুব পছন্দ করেছে।

কিন্তু বলে রাখি এই জুটি বেশিদিন টিকতে পারেনি। এমন কিছু ঘটেছিল যে দুজনেই একে অপরের থেকে আলাদা হয়ে যায় এবং এই ঘটনা ঐশ্বর্যর জীবনেও আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল। চলুন আজকে সেই সাথে সম্পর্কিত একটি গল্প বলি…

গজল প্রেমের গল্প অবলম্বনে নির্মিত এই ছবির নায়ক ছিলেন সালমান খান এবং নায়িকা ছিলেন ঐশ্বর্য রাই। এই ছবিতে দুজনের মধ্যে যে অনস্ক্রিন প্রেমের চিত্রায়ণ হয়েছিল তা পর্দায় প্রেমের গল্পে পরিণত হয়েছিল। ছবিটি ব্যাপক হিট হয়। ছবিটির পাশাপাশি তাদের অনস্ক্রিন জুটিও মানুষ পছন্দ করেছে। কিন্তু এরপর থেকে কয়েকদিনের জন্য ঐশ্বর্যর জীবনে বদলানো শুরু হয়। ছবিটি মুক্তির পর কিছু সময় সবকিছু ঠিকঠাক চললেও কিছুদিন পর সালমান ও ঐশ্বরিয়া দুজনের মধ্যেই বিবাদ শুরু হয়।

মিডিয়ার সামনে দুজনের মধ্যে হাতাহাতি পর্যন্ত চলে। দুজনের খবর তখনই শিরোনাম হতে থাকে। এর পরে, তাদের উভয়েরই আলাদা হয়ে যায়। আজ পর্যন্ত দুজনে একে অপরের সাথে কথা বলেনি। তাদের জুটি কার নজরে পড়েছিল জানি না, দুজনের মধ্যে দূরত্ব এতটাই বেড়ে গেল।

আজ দুজনেই নিজ নিজ জায়গায় খুশি। অমিতাভ বচ্চনের ছেলে অভিষেককে বিয়ে করে সুখী দাম্পত্য জীবন কাটাচ্ছেন ঐশ্বর্য। অভিষেক ও ঐশ্বর্যর আরাধ্যা বচ্চন নামে একটি মেয়েও রয়েছে। একই সঙ্গে সালমান আজ পর্যন্ত বিয়ে করেননি। বিয়ে না করার কারণ কেউ জানে না, তবে সালমান তার জীবনে খুব খুশি এবং তিনি তার কাজ নিয়ে খুব ব্যস্ত।

Related Articles

Back to top button