টেলিভিশনে কমেডি দিয়ে শুরু! আজ এই বিখ্যাত কমেডিয়ানসরা হারিয়েই গেছেন বিনোদন জগৎ থেকে


বছরের পর বছর ধরে ঐতিহাসিক, ক্রীড়া, হরর, পারিবারিক নাটক এবং সাসপেন্স ভিত্তিক শো সহ অসংখ্য শো নিয়েই মেতে থাকত টেলিভিশন। তবে গত দুই দশক ধরে কমেডি শো তাদের নিজস্ব পরিচয় তৈরি করেছে। একই সাথে শ্রোতারাও এ জাতীয় অনুষ্ঠানের প্রতি তাদের ভালবাসা ও মনোযোগ বাড়িয়েছেন। বিভিন্ন পরিচয় এবং রঙের কারণে, এই শোগুলির লক্ষ্য দর্শকদের বিরক্ত করা নয়, এক শ্রেণির দর্শকদের নিখাদ মনোরঞ্জন করাই এই শোগুলির মূল লক্ষ্য। এটি সমস্ত শ্রেণি এবং বয়সের লোকেরা দেখেন এবং এটিও এর সাফল্য। এ কারণে, এখন অবধি প্রচারিত প্রায় সমস্ত কমেডি শোতে ভাল টিআরপি রেটিং এবং জনপ্রিয়তা রয়েছে। তবে কিছু তারকা হারিয়ে গিয়েছিলেন, যারা একসময় কৌতুকের কিং হিসাবে বিবেচিত হত।

সুনীল পাল

জনপ্রিয় ভারতীয় কৌতুক অভিনেতা সুনীল পালের নামও এই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত। কর্মজীবনে তিনি ২০০৭ এ মুক্তিপ্রাপ্ত ‘বোম্বাই টু গোয়া’ সহ বেশ কয়েকটি ছবিতে অভিনয় করেছিলেন। এ ছাড়া তিনি ছিলেন ‘গ্রেট ইন্ডিয়ান লাফটার চ্যালেঞ্জ সিজন 1’ এর বিজয়ী। এছাড়াও ‘কমেডি চ্যাম্পিয়নস’ এর অংশ। সুনীল পাল অনেক ছবিতে কাজ করেছে কৌতুক অভিনেতা হিসেবে। তাকে সর্বশেষ ২০১৮ সালে ‘কমেডি চ্যাম্পিয়ন’ এ দেখা হয়েছিল।

সুদেশ লাহিড়ী

এক সময় কৌতুক জগতের সুপরিচিত নাম ছিল সুদেশ লাহিড়ী । ‘দ্য গ্রেট ইন্ডিয়ান লাফটার চ্যালেঞ্জ 2’ তে অংশ নিয়ে তিনি তাঁর কেরিয়ার শুরু করেছিলেন। রেডি ছবিতে সালমান খানের সাথে কাজ করার পর তিনি খুব বিখ্যাত হয়েছিলেন। তবে কিছুদিন কাজ করার পর পর্দা থেকে সে নিখোঁজ হয়ে যায়। তাকে সর্বশেষ টিভি শো ‘দ্য ড্রামা সংস্থা’ ২০১৮-এ দেখা গিয়েছিল।

আহসান কোরেশী

কমেডি জগতের বিখ্যাত মুখ এবং তার সময়কালের শ্রেষ্ঠ কৌতুকাভিনেতা হলেন আহসান কোরেশী। তিনি তাঁর অনন্য স্টাইলে কথা বলার জন্য খুব জনপ্রিয় ছিলেন। তাঁকে ‘বোম্বাই টু গোয়া’, ‘এক পহেলি লীলা’ এবং ‘লাইফ কি আইসী কি তৌসি’ ছবিতে দেখা গেছে। তিনি ‘দ্য গ্রেট ইন্ডিয়ান লাফটার চ্যালেঞ্জ’-এর রানার আপ ছিলেন। এর পরে তিনি টিভিতে বহু বছর কাজ করেছিলেন। ২০১৩ সালে ‘ইয়ে আন দিন কি বাত হ্যায়’ ছবিতে তিনি সর্বশেষ প্রিন্সিপাল পান্ডের ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল তাকে।

রাজু শ্রীবাস্তব

তাঁর সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং বিখ্যাত কৌতুক অভিনেতা, রাজু শ্রীবাস্তব এখন মঞ্চ এবং পর্দা থেকে দূরে রয়েছেন। তিনি ‘গজোধার’ চরিত্র এবং অমিতাভ বচ্চনের নকলের জন্য সবচেয়ে বেশি স্বীকৃতি পেয়েছিলেন।

রাজু শ্রীবাস্তব অনেক বড় বড় ছবিতে অভিনয় করেছিলেন। তাকে ‘তেজাব’, ‘মাইনে প্যায়ার কিয়া, বাজিগর’, ‘টয়লেট: এক প্রেমের গল্প’ এবং ‘ফিরাঙ্গি’ ছবিতে দেখা গেছে। তিনি অনেক টিভি শোও করেছিলেন। সর্বশেষ তাকে টিভি শো ‘গ্যাংস অফ হাসিনাপুর’ দেখা গিয়েছিল।


Like it? Share with your friends!

654
654 points