তারাদের দেশে সুশান্ত! জাতীয় পুরস্কার পেলেও ছুঁয়ে দেখতে পারলেন না প্রয়াত অভিনেতা


বেঁচে থাকতে শিকার হয়েছেন শত লাঞ্ছনা-গঞ্জনার, শিকার হয়েছেন স্বজনপোষণের, কিন্তু মৃত্যুই যেন তাঁকে এনে দিল সেরা সম্মান। অবশেষে সেরা হিন্দি (Hindi) ছবির সম্মান পেল সুশান্ত সিং রাজপুত (Sushant Singh Rajput) অভিনীত ‘ছিছোড়ে’(Chhichhore)। পুরস্কারে ভূষিত করে প্রয়াত প্রাণোচ্ছল অভিনেতাকে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করলেন ছবির প্রযোজক সাজিদ নাদিয়াদওয়ালা (Sajid Nadiadwala)। ইনস্টাগ্রাম (Instagram) পোস্টে সাজিদ লেখেন, “আমরা এই পুরস্কার সুশান্তকে উৎসর্গ করছি। ওঁকে হারানোর ক্ষতি এখনও কাটিয়ে উঠতে পারিনি আমরা কেউই। তবে আশা রাখছি, এই পুরস্কার সুশান্তের পরিবার ও অনুরাগীদের কিছুটা হলেও আনন্দিত করবে।”

বলিসূত্রের (Bollywood) খবর অনুযায়ী, ২০১৯ সালে নাদিয়াদওয়ালা গ্র‍্যান্ডসন এন্টারটেইন্টমেন্টের (Nadiadwala Grandson Entertainment) তত্ত্বাবধানে তৈরি হয় ‘ছিছোড়ে’, কিন্তু ২০২০-এর ১৪ই জুন হঠাৎই দুনিয়া ছেড়ে চলে যান সুশান্ত। এরপর ক্রমশ সিবিআই, এনসিবি, ইডি সকল গোয়েন্দা সংস্থার নাম সুশান্ত-কাণ্ডের সঙ্গে জড়িয়ে গেলেও এখনও পর্যন্ত তদন্তের ইঙ্গিত, আত্মহত্যা করেছেন অভিনেতা। যদিও আত্মহত্যার প্ররোচনা কে দিল বা কেনই নিজের জীবনকে এভাবে শেষ করে দিলেন সুশান্ত, সে বিষয়ে ধোঁয়াশা এখনও বিদ্যমান।

নেটাগরিকদের মতে, কোথাও গিয়ে মিলেমিশে এক হয়ে যায় সুশান্ত ও সাজিদের জীবন। সূত্রের খবর, সাজিদের জীবনেও ঠিক এরকমই অস্বাভাবিক দুর্ঘটনা ঘটে যায়। সদ্য বিয়ে করার পর হঠাৎই স্ত্রী দিব্যা ভারতীর মৃত্যু গভীর ক্ষত দিয়ে যায় সাজিদকে। সে ঘটনার কষ্ট যে এখনও বয়ে বেড়ান সাজিদ, তা নিজেই বহুবার জানিয়েছেন প্রযোজক।

বলিবোদ্ধাদের মতে, সুশান্ত ও দিব্যা, দুজনেই খুব অল্প সময়ে অভিনয় জীবনকে এক অন্য স্তরে নিয়ে গিয়েছিলেন। যদিও দিব্যার কেরিয়ারে দূরন্ত গতি থাকলেও সুশান্ত ছিলেন আনকোরা স্ট্রাগলার। যদিও সুশান্ত এহেন সম্মান পাওয়ায় খুশি সকলেই। তবু সুশান্তকে নিজে হাতে পুরস্কার তুলে নিতে দেখলে যে আরও কয়েকগুণ বেশি খুশি হত সুশান্তের পরিবার, তা আর বলার অপেক্ষা থাকে না।

 


Like it? Share with your friends!

645
645 points