খবরবিনোদন

‘বিচারকদের স্বাধীনতা নেই ইন্ডিয়ান আইডলে’ সুনিধির মন্তব্য আবারো উসকে দিল বিতর্ক!

বেশ কিছুদিন হল ইন্ডিয়ান আইডল ১২ (Indian Idol 12) চর্চায় উঠে এসেছে। তবে রিয়্যালিটি শোটি নিয়ে বিতর্ক যেন আর শেষ হচ্ছে না। একেরপর এক মন্তব্য আসতেই থাকছে। কখনো শোএর বিচারক তো কখনো অন্য গায়ক থেকে শুরু করে প্রাক্তন প্রতিযোগীরা নানান মন্তব্য করে বিতর্ক অরে বাড়িয়ে তুলেছে। এবার সেই বিতর্কের আগুনে আবারো ঘি ঢাললেন ইন্ডিয়ান আইডলের প্রাক্তন বিচারক সুনিধি চৌহান (Sunidhi Chauhan)।

ইন্ডিয়ান আইডল পঞ্চম ও ষষ্ঠ সিজেনে বিচারকের আসনে ছিলেন সুনিধি চৌহান। বর্তমানে তিনি বিচারকের আসনে না থাকলেও সম্প্রতি ‘টাইমস অফ ইন্ডিয়া’ সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তার দেওয়া বক্তব্য আবারো একবার বাড়িয়ে তুলেছে ইন্ডিয়ান আইডল বিতর্ক। সাক্ষাৎকারে সুনিধি বলেন, ‘ইন্ডিয়ান আইডলে বিচারকদের কোনো স্বাধীনতাই নেই। বিচারকেরা নিজেদের মতামত স্বাধীন ভাবে প্রকাশ করতে পারেন না’।

এখানেই শেষ নয় তিনি আরো বলেন, ‘ শোতে কর্তৃপক্ষ যেমনটা বলতেন তেমনটাই করা হত। সব প্রতিযোগীদের প্রশংসা করার আবশ্যক না থাকলেও চাপ থাকতো সকলের প্রশংসা করার জন্য’। শোতে বিচারকদের বিচার করার অধিকার না থাকার কারণে তিনি একসময় ইন্ডিয়ান আইডল ছেড়ে দেন। এমনকি এরপর আর কোনো রিয়্যালিটি শোতে বিচারকের আসনে দেখা যায়নি সুনিধি চৌহানকে। নিজের এই মন্তব্যের কারণে বর্তমানে ইন্ডিয়ান আইডলের পাশাপাশি সুনিধিও বেশ চর্চায় চলে এসেছেন।

এই প্রসঙ্গে সুনিধি আরো জানিয়েছেন, হয়তো দর্শকরা প্রতিযোগীদের প্রশংসা দেখতেই পছন্দ করেন। তাই জন্যই হয়তো অনুষ্ঠানের জনপ্রিয়তা বাড়ানোর জন্য চ্যানেল কর্তৃপক্ষ এই ধরণের কাজ করে থাকেন। প্রসঙ্গত সুনিধিও কিন্তু  ছোট বেলায় এক রিয়্যালিটি শো এর মাধ্যমেই বিখ্যাত হয়েছিলেন। ১৯৯৫ সালে মাত্র ১২ বছর বয়সে ন‍্যাশনাল টেলিভিশন চ্যানেলের গানের অনুষ্ঠান ‘মেরি আওয়াজ শুনো’ তে প্রথম হয়েছিলেন।

প্রতিযোগিতায় জিতলে সুনিধিকে লতা মঙ্গেশকর ট্রফি দেওয়া হয়েছিল। এর পরেই বিখ্যাত হয়ে পড়েন সুনিধি। এরপর থেকে এখনো পর্যন্ত বহু বলিউডের ছবিতে প্লে ব্যাক গায়িকা হিসাবে গান করেছেন। তবে বর্তমানে ইন্ডিয়ান আইডল নিয়ে তৈরী হওয়া এই বিতর্ক কতদূর পর্যন্ত গড়াবে এটাই এখন দেখার বিষয়।

Related Articles

Back to top button