গসিপবিনোদনসিনেমা

একাধিক বিয়ে করে দেশের জনসংখ্যা বাড়াচ্ছে! আমির খানের বিরুদ্ধে উঠল বিস্ফোরক অভিযোগ

বলিউডের (Bollywood) জনপ্রিয় খানদের মধ্যে অন্যতম হলেন আমির খান (Amir Khan) । এমনিতে নিজের অভিনয় নিয়ে বরাবরই বেশ খুঁতখুঁতে স্বভাবের অভিনতা। সবকিছুই পারফেক্ট করতে ভালোবাসেন তিনি। তাই ভক্তদের কাছে মিস্টার পারফেকশনিস্ট বলেই পরিচিত। কিন্তু পেশাগত জীবনে পারফেকশনিস্ট হলেও ব্যাক্তিগত জীবনে আমিরকে সেই তকমা দেওয়া চলে না। বিশেষ করে দ্বিতীয় স্ত্রী কিরণ রাও (Kiran Rao) রায়ের সাথে দীর্ঘ ১৫ বছরের দাম্পত্য জীবনের অবসান (Divorce) ঘটার পর এমনটাই দাবি করে আসছেন নিন্দুকেরা। এসবের মধ্যেই জল্পনা তৈরি হয়েছে অভিনেতার তৃতীয় সম্পর্ক নিয়ে।

এমনিতেই বিতর্কিত মন্তব্য করায় নেতা মন্ত্রীদের জুড়ি মেলা ভার। আর এবার আমির খানের ডিভোর্স নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করে বসলেন এক বিজেপি সাংসদ। সম্প্রতি প্রকাশ্যে আসা একাধিক রিপোর্টে দেখা গিয়েছে বিশ্বের অনান্য দেশগুলোর তুলনায় অপেক্ষাকৃত বেশী হারে বাড়ছে ভারতের জনসংখ্যা। এ প্রসঙ্গেই বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষ্যে বক্তব্য রাখতে গিয়ে আমিরের বিরুদ্ধে কার্যত বোমা ফাটালেন মধ্যপ্রদেশের মন্দসৌরের বিজেপি সাংসদ সুধীর গুপ্ত (Sudhir Gupta)।

aamir khan kiran rao

ইতিমধ্যেই অনেকে আমির এবং কিরণের বিচ্ছেদ নিয়ে নানান মন্তব্য করেছেন। তবে এবিষয়ে বিজেপি সাংসদের মন্তব্য সবকিছুকেই ছাড়িয়ে গিয়েছে।দেশের জনসংখ্যা বৃদ্ধির কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে ওই বিজেপি সংসদ এদিন দাবি করেন, ‘দুর্ভাগ্যজনকভাবে , দেশে জনসংখ্যার বিস্ফোরণের পেছনে আমির খানের মতো লোকের হাত রয়েছে।’

সেইসাথে তাঁর আরও সংযোজন ‘১৪০ কোটি ছুঁয়ে ফেলেছে এ দেশের জনসংখ্যা। এই সংখ্যাতত্ত্ব মোটেই ভাল নয়।ভারতের দিক দিয়ে দেখলে আমির খানের কথাই ধরুন। বলিউড তারকা আমির খানের প্রথম স্ত্রী রিনা দত্ত (Rina Dutta)। তাঁর দুই সন্তান।তবে এসবের মধ্যেও দাদা আমির এখন তৃতীয় স্ত্রীর খোঁজে রয়েছেন। এইভাবে চলতে থাকলে ভারত কি বিশ্বকে সঠিক বার্তা দিতে পারবে?’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য সম্প্রতি উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ জন্ম নিয়ন্ত্রণের জন্য একটি নতুন জনসংখ্যা নীতি ২০২১-৩০ ঘোষণা করেছেন। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই দেশের অনান্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিচার বিবেচনা করা শুরু করছেন। জানা গেছে উত্তরপ্রদেশের নতুন জনসংখ্যা নীতির মূল লক্ষ্য জনসংখ্যার বৃদ্ধি রোধ করা, মাতৃমৃত্যু নিয়ন্ত্রণ, রোগের বিস্তার নিয়ন্ত্রণ, এছাড়াও নবজাতক এবং পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের মৃত্যু রোধ করা এবং তাদের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটানো।

Related Articles

Back to top button