খবরবিনোদন

আর দেখা যাবে না লাবণ্যকে! ‘অনুরাগের ছোঁয়া’ থেকে বিরতি নিলেন রূপাঞ্জনা মিত্র

অনুরাগের ছোঁয়া থেকে সাময়িক বিরতি, কোথায় গেলেন 'লাবণ্য' অভিনেত্রী রূপাঞ্জনা মিত্র?

স্টার জলসার (Star Jalsha) ‘অনুরাগের ছোঁয়া’ (Anurager Chhowa) ধারাবাহিকে অভিনয় করে বাংলার প্রায় প্রত্যেক ঘরে ঘরে পৌঁছে গিয়েছেন অভিনেত্রী রূপাঞ্জনা মিত্র (Rupanjana Mitra)। অনেকের কাছেই এখন, লাবণ্য সেনগুপ্ত ওরফে রূপাঞ্জনা বেস্ট শাশুড়ি। স্টার জলসার এই সিরিয়ালের (Serial) সাফল্যের পিছনে রূপাঞ্জনার অবদান অপরিসীম। এবার সেই অভিনেত্রীই আচমকা সিরিয়াল থেকে বিরতি নিলেন।

রূপাঞ্জনা অভিনীত লাবণ্য চরিত্রটি ‘অনুরাগের ছোঁয়া’ দর্শকদের প্রচণ্ড প্রিয়। তাঁকে একদিন না দেখলেই মিস করেন সকলে। বিশেষত, তিনি যেভাবে প্রত্যেক পদে নিজের বৌমা দীপার পাশে দাঁড়ান তা সকলের ভীষণ ভালোলাগে। তবে এবার সেই লাবণ্যই সিরিয়াল থেকে বিরতি নিয়েছেন শুনে ‘অনুরাগের ছোঁয়া’ দর্শকদের বেশ মন খারাপ হয়ে গিয়েছে।

Anurager Chhowa, Rupanjana Mitra, Anurager Chhowa Labanya

রূপাঞ্জনা এমন একজন অভিনেত্রী যিনি নিজের অভিনয়ের মাধ্যমে বাংলা বিনোদন ইন্ডাস্ট্রিকে সমৃদ্ধ করেছেন। শুধু সিরিয়াল নয়, সিনেমাতেও কাজ করেছেন তিনি। সেই রূপাঞ্জনার কেরিয়ারের অন্যতম সেরা চরিত্র হল লাবণ্য। ‘অনুরাগের ছোঁয়া’য় অভিনয় করে একাধিক পুরস্কারও জিতেছেন তিনি।

আপাত দৃষ্টিতে দেখলে মনে হতে পারে, লাবণ্য চরিত্রটি শুধুমাত্র নায়কের মা। তবে বাস্তবে এমনটা মোটেই নয়। নায়ক-নায়িকা সূর্য-দীপার মতোই সিরিয়ালে লাবণ্যর গুরুত্বও ব্যাপক। আর এখন যেভাবে প্রত্যেক পর্বে ধারাবাহিকের কাহিনীর মোড় ঘুরছে, তাতে লাবণ্যকে ছাড়া একটি এপিসোডও কল্পনা করা যায় না। আর তখনই জানা গেল, রূপাঞ্জনা সিরিয়াল থেকে বিরতি নিয়েছেন।

Anurager Chhowa, Rupanjana Mitra, Anurager Chhowa Labanya

তবে ‘অনুরাগের ছোঁয়া’ এবং লাবণ্য অনুরাগীদের চিন্তা করার কিছু নেই। কারণ রূপাঞ্জনা পাকাপাকিভাবে সিরিয়াল ছেড়ে দেননি। বরং কিছুদিনের জন্য বিরতি নিয়েছেন। প্রেমিক রাতুল মুখোপাধ্যায় এবং ছেলে রিয়ানকে সঙ্গে নিয়ে গ্রীষ্মের ছুটিতে ঘুরতে গিয়েছেন অভিনেত্রী। সেই ছুটি কাটিয়ে আবার শ্যুটিং ফ্লোরে ফিরবেন তিনি।


সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরতে যাওয়ার ছবি শেয়ার করে রূপাঞ্জনা লেখেন, ‘আমাদের ছুটি শুরু হয়ে গেল! রিয়ানের বহু প্রতীক্ষিত গ্রীষ্মের ছুটি। আমাদের চেকলিস্ট শুরু হয়ে গিয়েছে। কলকাতা থেকে হায়দ্রাবাদ হয়ে তাডোবা। সেখান থেকে আবার হায়দ্রাবাদ হয়ে কলকাতা’।

Back to top button