বিনোদনভাইরালভিডিও

‘এখনও দাদার প্রেমে পড়ে মেয়েরা’, দাদাগিরিতে একথা শুনে ‘শুধু শুনি দেখি না’ বললেন সৌরভ

ক্রিকেটের মহারাজ তথা বাংলার ‘দাদা’ সৌরভ গাঙ্গুলি (Sourav Ganguly)। ২২ গজের মাঠ হোক বা দাদাগিরির (Dadagiri) সেট দাদার পার্সোনালিটি প্রেমে পড়ার মত। সেই শুরুর সময় থেকেই বাংলার মহিলারা দাদাকে দেখে ক্রাশ খেয়ে প্রেমে পরেই চলেছে। এমনকি বয়সের হাফ সেঞ্চুরি করতে চললেও সৌরভকে দেখা সেটা বোঝা একেবারেই অসম্ভব। বর্তমানে দাদাগিরি সিজেন ৯ এর সৌজন্যে টিভির পর্দায় দেখা মিলছে দাদার।

দাদাগিরিতে নিত্যনতুন পর্বে গোটা পশ্চিমবঙ্গ থেকে নানান জেলার প্রতিযোগীরা হাজির হয়। তাদের মধ্যে বিশেষত মহিলা প্রতিযোগীরা দাদার একেবারে ডাই হার্ড ফ্যান বলা চলে। সাধারণ মহিলা থেকে সেলেব্রিটি সকলেই দাদার ফিটনেস থেকে শুরু করে পার্সোনালিটির প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে পড়েন। অবশ্য সেটা হওয়াই স্বাভাবিক। তবে দাদাগিরিতে শুধু দাদাই গুগলি ছোড়েন না প্রতিযোগীদের দিকে। প্রায় প্রতি পর্বেই প্রতিযোগীরা নিজেদের কিছু প্রশ্ন নিয়ে আসে।

সম্প্রতি দাদাগিরিতে সম্প্রচারিত হতে চলছে একটি বিশেষ পর্ব। যেখানে টলিউডের সেলেব্রিটিদের খেলতে দেখা গিয়েছে। পায়েল সরকার (Payel Sarkar), ঋদ্ধি সেন, ঋতব্রত থেকে কমলেশ্বরের মত অভিনেতা অভিনেত্রীরা হাজির হয়েছেন এই বিশেষ পর্বে। আর মঞ্চে দাদার উদ্দেশ্যে বেশ কিছু প্রশ্ন করেছেন তারকারাও। দাদার কাছে কমলেশ্বর রায়ের প্রশ্ন ছিল যে উত্তম কুমার কে সামনে পেলে কি প্রশ্ন করতেন তিনি? যার উত্তরে দাদা জানান, ‘এত খেয়েও কিভাবে ফিট থাকতেন সেটাই জানতে চাইতাম’।

এরপর অভিনেত্রী পায়েল বলেন, ‘যবে থেকে তোমায় দেখছি তুমি একইরকম আছো। তোমার প্রেমে এখনো প্রচুর মেয়েরা পড়ে’। পায়েলের মুখে এই কথা শুনে দাদা হাসি মুখেই জানিয়েছেন, ‘আমি তো শুনি দেখতে পাই না’। এই শুনে সকলেই হেসে উঠেছে। তারপরেই দাদা বলেন, আজ আর বাড়িতে ঢুকতে দেবে না আমাকে।

এরপর আসে আবারও একটি প্রশ্ন। পায়েল প্রশ্ন করেন, ‘ডোনাদি রেগে গেলে তখন কি কর?’ যার উত্তরে সৌরভ জানান, ‘রেগে গেলে আমি বাড়িতেই থাকি না’। এবারেও প্রশ্নের উত্তর শুনে হেসে ফেলেছে সকলে। এভাবেই হাসি মজার মধ্যে দিয়ে চলেছে গোটা পর্বের খেলা। আসন্ন এই পর্বের একটি ছোট্ট ভিডিও চ্যানেলের পক্ষ থেকে শেয়ার করা হয়েছে। যা ইতিমধ্যেই বেশ ভাইরাল হয়ে পড়েছে ফেসবুকে।

Related Articles

Back to top button