ছবিবিনোদনসিরিয়াল

সুখে, দুঃখে টিভির পর্দায় মিঠাইরানির একবছর, সোশ্যাল মিডিয়ায় আবেগঘন বার্তা সৌমিতৃষার

দর্শকদের ভালোবাসার জোর যে কতখানি তা গত ৩৮ সপ্তাহ ধরে টিআরপি লিস্টের শীর্ষে থাকা ‘মিঠাই’ (Mithai) সিরিয়ালের জনপ্রিয়তা দেখেই আঁচ করা যায় সহজে। আর এই কারণেই গত প্রায় ৩৮ সপ্তাহের বেশি সময় ধরে একের পর এক ছক্কা হাঁকিয়ে দাপটের সাথে বেঙ্গল টপারের মুকুট নিজেদের দখলে রেখে চলেছে মিঠাইয়ের মোদক পরিবার।

আর এই কারণেই প্রতি সপ্তাহের টিআরপির (TRP) লড়াইয়ে মিঠাই ম্যাজিকের সামনে ফিকে পড়ে যাচ্ছে অন্য যে কোনো সিরিয়াল। হাসি, খুশি, ঐতিহ্যশালী যৌথ বাঙালি পরিবারের প্রেক্ষাপটে তৈরি এই সিরিয়ালের অন্যতম ইউ এস পি হল পজিটিভিটি। সিরিয়ালের একাধিক পজিটিভ চরিত্র দেখে এক নিমেষে মন ভালো হয়ে যায় দর্শকদের।

Mithai Family,Durga Puja

এই কারণেই আর পাঁচটা সিরিয়াল থেকে এক্কেবারে আলাদা ‘মিঠাই’। মিষ্টি মানেই বাঙালির কাছে ইমোশন। এই সিরিয়ালের ভাষায় ‘সুখে, দুঃখে,মিষ্টি মুখে মিঠাই।’ শুরুতে জনাইয়ের ঐতিহ্যবাহী মিষ্টি মনোহরা কে কেন্দ্র করে এগোতে থাকে সিরিয়ালের গল্প। এই মনোহরার মতোই মিষ্টি সিরিয়ালের নায়িকা মিঠাই। প্রথম দিকে মিষ্টির হাঁড়িতে মনোহরা নিয়ে গায়ে কার্ডিগান চাপিয়ে, মুন্নিতে চড়ে মিষ্টি বিক্রি করতো সে।

Mithai Sidharth

এখন সেসব অতীত। নানান ঘটনাচক্রে মিঠাই এখন কলকাতার বিখ্যাত মিষ্টির ব্যাবসায়ী সিদ্ধেশ্বর মোদকের বাড়ির নাতবৌ। উল্লেখ্য এই মিঠাই চরিত্রে অভিনয় করছেন অভিনেত্রী সৌমিতৃষা কুন্ডু (Soumitrisha Kundu)। এমনিতে বাস্তব জীবনে সোশ্যাল মিডিয়ায় দারুন অ্যাক্টিভ থাকেন অভিনেত্রী। মাঝেমধ্যেই নানান ছবি কিংবা ভিডিও শেয়ার করে থাকেন অভিনেত্রী।

তেমনই গতকাল একটি পোস্ট করেছিলেন অভিনেত্রী। সেখানে অভিনেত্রী জানিয়েছেন গতকালই মিঠাইয়ের প্রথম শুটিং শুরু হয়েছিল। সেইসাথে তিনি জানান যেদিন ধারাবাহিকের শুটিং শুরু হয়েছিল সেদিন তিনি নাকি বেশ চোট পেয়েছিলেন তাঁর হাঁটুতে। এমনকি হাঁটুতে রক্ত জমে গিয়েছিল তাঁর। কিন্তু তাতে নায়িকার কোনও আক্ষেপ ছিল না। কারণ ওই ব্যথা পা নিয়েই শুট শেষ করেছিলেন সৌমিতৃষা। কিন্তু শুট শেষের পর পরিচালক নায়িকাকে বলেছিলেন, ‘খুব সুন্দর শুটিং হয়েছে তোমার’! যা শুনে সেই মুহূর্তে তার শরীরের সমস্ত যন্ত্রণা নিমেষে নিঃশেষ হয়ে যায় বলে জানিয়েছেন সৌমিতৃষা।

Related Articles

Back to top button