বিনোদনভাইরালভিডিওসিরিয়াল

ড্যাডির আদরে বাঁদর হয়েছে গুনগুন, শেষে সামলানোর দায়িত্ব নিজের কাঁধে নীল সৌজন্য

টিআরপি তালিকার অন্যতম হিট সিরিয়েল খড়কুটো (Khorkuto)। সিরিয়ালে গুনগুন-সৌজন্যের (Gungun-Soujanyo) কেমিস্ট্রি বেশ মনে হদরেছে দর্শকদের। তবে মাঝে কিছুদিন যেন খেয়ে হারিয়েছিল সিরিয়াল। বর্তমানে অবশ্য ট্রাকে ফেরার চেষ্টা চলছে সিরিয়ালে। সৌজন্যের সাথে ঝগড়া  চ্যালেঞ্জ করে গুনগুন বাপের গিয়েছিল। অনেক কষ্টে তাকে ফেরত এনেছে সৌজন্য ও তার পরিবার।

কিন্তু  গুনগুন-সৌজন্যের মধ্যেকার ঝামেলা মেটেনি এখনো। শেষ পরীক্ষা দিতে যাবার আগে ফের ঝামেলা পেকেছে সৌজন্য-গুনগুনের মধ্যে। সৌজন্যের কলিগ তিন্নি বাড়িতে আসায় গুনগুন সবার সামনে বলেই ফেলেছে যে গুনগুন চলে গেলে ভালোই হয়। বাড়ির বৌ হিসাবে তিন্নি দিদি আসবে। তবে এই কথাই সায় দিতে একেবারেই রাজি নয় সৌজন্য।

Soujanyo Gungun খড়কুটো সৌজন্য গুনগুন

গুনাগুনের মতে সে বাবাকে ফোন করে রাখবে যাতে পরীক্ষা শেষ হলেই সে নিজের বাড়ি ফিরতে পারে। সৌজন্যের মতে, ‘বাবার আদরে বাঁদর হয়েছে গুনগুন। এবাড়ি ফেরাটা তোমার ইচ্ছায় হতে পারে তবে এখান থেকে বেরোনোটা আমার ইচ্ছায় হবে’। যদিও সৌজন্যকে পাত্তা দিতে মোটেও রাজি নয় গুনগুন।

গুনাগুনের মতে সেও দেখে নেবে কি কে তাকে আটকায় আর কি করে। এখন এটাই দেখার যে শেষমেশ কি করে গুনগুনকে আটকে রাখে সৌজন্য। দুজনের মধ্যেই দুজনের প্রতি ভালোবাসা যে রয়েছে সেটা বিগত কিছু পর্বে একেবারে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। সৌজন্য যেমন গুনগুনকে ছেড়ে বাড়িতে থাকতে পারছে না। তেমনি গুনগুনও কিন্তু বাড়িতে থেকে সৌজন্যকে মিস করছে।

কিন্তু সৌজন্য আর তিন্নি দিদির সম্পর্কের কথা ভেবেই অভিমানী হয়েছে গুনগুন। এই কারণেই সৌজন্যকে ডিভোর্স দেবার কথা ও বাড়ি ছেড়ে চলে  যাবার কথা বলছে সে। এবার অপেক্ষা শুধু শেষ পরীক্ষার। তারপরেই বোঝা যাবে কোন দিকে মোড় নিতে চলেছে সম্পর্ক।

Related Articles

Back to top button