খবরবিনোদন

কনকনে শীতে কাঁপছে ২০টি গ্রামের বয়স্করা, দেবদূত হয়ে হাজির হলেন গরিবের ভগবান সোনু সুদ

করোনা সংকটকালে একাধিকবার দুর্গতদের ত্রাতার ভূমিকায় দেখা দিয়েছেন বিখ্যাত বলিউড অভিনেতা সোনু সুদ (Sonu Sood)। কখনও পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরানো, তো কখনও আবার স্মার্টফোনের জন্য পড়াশোনা বন্ধ হতে বসা ছাত্রীদের দায়িত্ব নেওয়া। আবার করোনায় কাজ হারানো মানুষদেরউপার্জনের পথ খুলে দিতে ই রিক্সা কিনে দেওয়া। এমনকি অসহায়দের সাহায্যের জন্য নিজের সম্পত্তি বন্ধক রেখে ১০ কোটি টাকার লোন নিয়েছেন সোনু সুদ। একের পর এক মানবিক পদক্ষেপ নিয়ে সোনু সুদ ভারতের জনগণের কাছে এখন কার্যতই ‘গরিবের ভগবান’। নিজের ভাল কাজের জন্য ঘরে বাইরে তুমুল ভাবে প্রশংসা আর আশীর্বাদ কুড়িয়েছেন সোনু সুদ ৷

সোনু সুদ Sonu Sood

কিছুদিন আগেই সোনু সুদের মন্দির প্রতিষ্ঠিত হয়েছে তেলেঙ্গানায়। তাছাড়া বছরের শেষেই গর্বে ভরিয়ে দিয়েছেন নিজের মা কে সোনু সুদ। তার মা সরোজ সুদের নাম নামকরণ হয়েছে রাস্তার। এরপর অভিনেতা টুইট করে লিখেছিলেন, ‘এটা এখনও পর্যন্ত আমার জীবনের সবচেয়ে বড় পাওয়া। আর থাকবেও’।

সোনু সুদ Sonu Sood

এবার আবার দেবদূতের রূপে হাজির হয়েছেন সোনু সুদ। সম্প্রতি সোনু জানতে পারেন উত্তরপ্রদেশের মির্জাপুরে একাধিক গ্রামে কনকনে ঠান্ডায় কষ্ট পাচ্ছেন প্রচুর অসহায় মানুষেরা। যাদের বেশিরভাগই প্রবীণ মহিলা, এই কথা জানার পর আর বসে থাকেননি সোনু। মির্জাপুরের ২০টি গ্রামের অসহায় বৃদ্ধরা যাতে কনকনে শীত থেকে বাঁচতে পারেন তার ব্যবস্থা করার প্রতিশ্রুতি দিলেন সোনু সুদ।

সোনু সুদ Sonu Sood

সোশ্যাল মিডিয়া মাধ্যম টুইটারে সোনু লিখেছেন, ‘এবার  ২০টি গ্রামের কারোর ঠান্ডা লাগবে না। খুব শীঘ্রই তাদের জন্য শীতের জিনিসপত্র আপনার কাছে পৌঁছে যাবে’। এই ঘটনা আবারো প্রমান করে, যে সোনু সুদকে কেন গরিবেরা ভগবান রূপে পুজো করছেন। সত্যি সত্যিই দেবদূতের মত হাজির হয়েছেন অভিনেতা।

প্রসঙ্গত, সোনু সুদ (Sonu Sood) তার আত্মজীবনী একটি বই রূপে প্রকাশ করেছেন। বইটির নাম ‘আই এম নো মেসিহা’। বইটির প্রকাশের পর এক সাক্ষাৎকারে অভিনেতা বলেছেন, ‘২০২০ অনেকের কাছেই খুব কঠিন সময় গিয়েছে। তবে এটা আমার কাছে একটা সুযোগ ছিল কোটি কোটি মানুষের কাছে পৌঁছানোর। আমি আমার যতটুকু সামর্থ্য চেষ্টা করেছি। আর এই পথে চলতে গিয়ে আমি অনেক কিছু যেমন শিখেছে তেমনি অনেক সন্মান ও ভালোবাসা অর্জন করেছি’।

Related Articles

Back to top button