বিনোদনভিডিওসিরিয়াল

মিঠাই সিরিয়ালে চলছে মান-অভিমানের পালা! ডিভোর্স দিতে চাইলেও প্রেমের বাঁধনে জড়িয়েছে সিড

মিঠাই (Mithai) এই নামটা এখন প্রতিটা বাঙালির ঘরে ঘরে। জি বাংলার জনপ্রিয় সিরিয়াল মিঠাই যে মন্ত্রমুগ্ধ করেছে বাঙালি দর্শকদের তার প্রমাণ প্রতি সপ্তাহেই মিলছে। বাড়ির সকলের প্রিয় মিঠাইকে প্রথমে একেবারেই পছন্দ ছিল না সিদ্ধার্থের। দুজনের সম্পর্কের টানা পোড়েন দেখে দাদু দুজনের ডিভোর্সের ব্যবস্থা করেছে। ওদিকে সিদ্ধার্থ অর্থাৎ সিডের প্রেমিকা তোর্সাও চায় যতদ্রুত সম্ভব ডিভোর্স হোক মিঠাই-সিদ্ধার্থের। এবার সেই পর্বই দেখানো হচ্ছে মিঠাই সিরিয়ালে।

ডিভোর্সের কাগজপত্র নিয়ে মোদক পরিবারে হাজির হয়েছে তোর্সার মা। মিঠাই সিদ্ধার্থের ডিভোর্সের জন্য উঠে পরে লেগেছেন তিনি। মিঠাই, দাদু, সিদ্ধার্থ, সিদ্ধার্থের বাবা, তোর্সা সকলের সামনেই মিঠাইকে মিউচ্যুয়াল ডিভোর্সের আবেদনের জন্য বোঝাচ্ছেন তোর্সার মা। তিনি মিঠাইকে কোর্টে বলতে বলছেন, ‘এই বিয়েটা মিঠাইয়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে হয়েছিল। তাছাড়া এটা কোনো বিয়েই নয়। এই সম্পর্কের কোনো মানেই হয়না। সম্পর্কে খুশি নয় মিঠাই তাই ডিভোর্স চাই’।

কিন্তু তোর্সার মায়ের কথা শুনে ছলছল করে ওঠে মিঠাইয়ের, এই দেখে সিদ্ধার্থের মনও আর শান্ত থাকতে পারেনি। সিদ্ধার্থ মিঠাইয়ের কষ্ট দেখতে না পেরে তোর্সার মাকে বলেছে, ‘মিঠাই এই বাড়িতে বেশ ভালোই আছে। বাড়ির সকলেই মিঠাইকে খুব ভালোবাসে, আর মিঠাইও বাড়ির সকলকে ভালোবাসে। তাহলে এই ধরণের মিথ্যে কথা সে কেন বলতে যাবে’!

অর্থাৎ বোঝাই যাচ্ছে যে সম্পর্কের বাঁধন থেকে মুক্তি পেতে চাইছিল সিদ্ধার্থ। সেই সম্পর্কেই প্রেমের আভাস মিলছে। মিঠাইয়ের জন্য সিদ্ধার্থের মনে একটা জায়গা তৈরী হয়েছে যেটাকে সে চাইলেও লুকোতে পারছে না আর। সত্যি বলতে বিগত কিছুদিন ধরে সিরিয়ালে যেন মান-অভিমানের পালা চলছে। মিঠাইকে করতে কি বলতে হবে সেটা শেখানোর সময় সিদ্ধার্থ আর মিঠাইয়ের কথাবার্তা শুনেই সেটা স্পষ্ট হয়েগেছিল। এবার সেটাই আরও স্পষ্ট হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, মিঠাই ও সিদ্ধার্থের  ডিভোর্স হোক এটা মিঠাই-সিদ্ধার্থ থেকে শুরু করে দাদু বা বাড়ির কেউই চায় না। দর্শকের বেশিভাগ তো এখনো বিশ্বাস করতেই চাননা যে মিঠাই সিদ্ধার্থর ডিভোর্স হবে বলে। এখন আদৌ দুজনের ডিভোর্স হবে নাকি মান-অভিমানের পালা শেষে একেঅপরের প্রেম বুঝতে পারবে দুজনে সেটাই দেখার।

Related Articles

Back to top button