বিনোদনসিরিয়াল

প্রতিভার কদর নেই! সিরিয়ালে কাজ না জুটলে অভিনয় আর নাচ শিখিয়ে পেট চালাবেন শ্রুতি

অভিনয় জীবনের বয়স মাত্র ৩ বছর হলেও এরই মধ্যে বাংলা ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম  চর্চিত অভিনেত্রী হয়ে উঠেছেন শ্রুতি দাস (Shruti Das)। ২০১৯ সালে প্রথম সিরিয়াল ‘ত্রিনয়নী’ থেকেই ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন অভিনেত্রী। সেসময় একাধিকবার বাংলার সেরা সিরিয়াল হয়েছিল এই সিরিয়াল।

এরপরেই সুযোগ আসে ষ্টার জলসার আরো এক জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘দেশের মাটি’-তে অভিনয়ের। এবারও সুযোগ আসে মুখ্য চরিত্রে অভিনয়ের। দেশের মাটি সিরিয়াল শেষ হওয়ার পর কেটে গিয়েছে ৯ মাস। আর  আশ্চর্যজনক ভাবে এই সিরিয়াল শেষের পর সমস্ত কলাকুশলীরা নতুন নতুন কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়লেও একমাত্র কোনো কাজ নেই শ্রুতির হাতেই।

Shruti Das শ্রুতি দাস

এপ্রসঙ্গে এতদিন মুখে কুলুপ আঁটলেও চারপাশের পরিস্থিতি দেখে সকলের উদ্দেশ্যে পজিটিভ বার্তা দিয়ে এদিন অভিনেত্রী জানিয়েছেন ‘আমার কারওর উপর কোনো রাগ ক্ষোভ কিচ্ছু নেই
আমি ন’মাস ধরে এই নিয়ে মিডিয়া কে খবর করতে দিই নি।কিন্তু চারদিকে এত ডিপ্রেশন ফ্রাস্ট্রেশন এত কর্মহীন মানুষ দের আত্মহননের পথে যাওয়ার খবর হয়ত আমার শুভাকাঙ্খী দের চিন্তিত করছিল তাই আমি তাদের আশ্বাস দিলাম আমি আবার ভালো থাকব খুব তাড়াতাড়ি।’

Shruti Das, Hair Cut,

প্রসঙ্গত আজ আনন্দবাজার পত্রিকায় অভিনেত্রী ভিতর ভিতর চেপে রাখা কষ্টের কথা জানিয়ে বলেছেন ‘আজ যে রাজা, কাল সে ফকির!’ অভিনেত্রীর কথায় মাত্র বছরেই আজ তিনি জীবনের এক কঠিন বাস্তবের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে রয়েছেন। শ্রুতির কথায় অস্বাভাবিকভাবেই ‘দেশের মাটি’ শেষ হওয়ার ৯ মাস পর সবাই কাজ করলেও শুধু কাজ নেই তাঁর হাতে।

শ্রুতি দাস Shruti Das দেশের মাটি

খানিকটা হতাশা নিয়েই অভিনেত্রী জানান একটা সময়ে তাঁকে নিয়ে আড়ম্বরের শেষ ছিল না। আর আজকাল নাকি চেনা মানুষরাও তাঁর মেসেজের উত্তরটুকুও দেন না। এপ্রসঙ্গে শ্রুতি বলেছেন, ‘ অনেকের বক্ত্যব্য আমার ‘বর’ স্বর্ণেন্দু সমাদ্দার (Swarnendu Saddar)। আমার আর কাজের অভাব হবে কেন? স্বর্ণেন্দু আমাকে কেন তাঁর ধারাবাহিকে নেন না? আরে, ধারাবাহিকে অভিনয় করতে গেলে চ্যানেলের সম্মতিও দরকার। সেটা কি কেউ জানেন না? দুটো লিড করার পর সিরিজ, ধারাবাহিকের অডিশন পর্যন্ত দিয়েছি। বাতিল করে দেওয়া হয়েছে।’

এখানেই না থেমে শ্রুতি জানিয়েছেন একটি ধারাবাহিকে তাঁর বদলে অন্য কেউ অভিনয় করছে। তবে এতকিছুর পরেও দাঁতে দাঁত চেপে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন শ্রুতি। তিনি তিনি ঠিক করেছেন যতদিন না কাজ পাচ্ছেন ততোদিন লড়াই চালিয়ে যাবেন। সেইসাথে শ্রুতি জানান  তাঁর মোটেই এখনই এমন কিছু বয়স  হয়ে যায়নি যে তিনি সিরিয়ালে লিড রোল পাবেন না।  সবশেষে লড়াকু শ্রুতির সংযোজন ‘সবাই ভুলে গেলে আমি নাচ বা অভিনয় যতটুকু পারি, তা শিখিয়ে পেট চালিয়ে নেব ঠিক’।

Related Articles

Back to top button