গসিপবিনোদনসিনেমা

রাজের সাথে বিয়েটাই করতে চাননি শিল্পা, জেল থেকে ছাড়া পেতেই প্রকাশ্যে দ্বিতীয় বিয়ের কাহিনী

বলিউডের পেজ থ্রীতে বর্তমানে যেসমস্ত নাম রীতিমত শিরোনাম করছে তাদের মধ্যে প্রথমে রয়েছে শিল্পা শেট্টি (Shilpa Shetty) ও রাজ কুন্দ্রার (Raj Kundra) নাম। কিছুদিন আগেই পর্ণ ছবি তৈরির অভিযোগ উঠেছে রাজ কুন্দ্রার বিরুদ্ধে। মুম্বাই পুলিশ পর্ণ ছবি তৈরির অভিযোগে অনেক আগেই গ্রেফতার করেছিল তাকে। এরপর বিগত ২ মাস জেলেই থাকতে হয়েছে রাজকে। অবশ্য শেষে ২০ই সেপ্টেম্বর জামিন পেয়েছেন রাজ।

তবে জেল থেকে মুক্তি পেলেও সোশ্যাল মিডিয়াতে চর্চার অন্ত নেই। এমনিতেই বলিউডের কেচ্ছা নিয়ে সরগরম থাকে নেটপাড়া। সেখানে বলিউডের ভিতরেই এভাবে পর্ণ ছবির শুটিং নিয়ে চর্চা কি আর সহজে কমে! রাজের পাশাপাশি স্ত্রী হবার দরুন নাম জড়িয়েছে শিল্পা শেট্টিরও। অভিনেত্রী নিজেও স্বীকার করেছেন যে রাজের কুকীর্তির কারণে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে তার কেরিয়ারে। তাছাড়া পরিবারেরও সম্মানহানি হয়েছে।

shilpa shetty married raj kundra

নেটিজেনদের মতে স্বামী পর্ণছবির ব্যবসা করতেন আর স্ত্রী তার ব্যাপারে কিছুই জানতেন না এটা কি করে হতে পারে! তবে শিল্পা বরাবরই জানিয়েছেন যে রাজের ব্যবসা সম্পর্কে কোনো ধারণাই ছিল না তার। এসবের মধ্যেই রাজ ও শিল্পার সম্পর্কের পুরোনো অনেক তথ্য সামনে এসেছে। জানা গিয়েছে শিল্পা রাজ কুন্দ্রার প্রথম স্ত্রী নন। এর আগেও বিয়ে করেছিলেন রাজ।

 

প্রথম স্ত্রীর নাম ছিল কবিতা, তার সাথে ঝামেলার কারণে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায়। এরপর ২০০৯ সালে শিল্পাকে বিয়ে করেন রাজ। কিন্তু প্রেমের সম্পর্ক তৈরী হলেও বিয়েতে প্রথমদিকে মত ছিল না শিল্পার। কারণ বেশ ছোট বয়স থেকেই বলিউডে কাজ শুরু করেছিলেন শিল্পা। সেই সময় ইন্ডাস্ট্রিতে বড়সড় অভিনেত্রী হোৱৰ স্বপ্ন ছিল তার। কিন্তু ৩৪ বছর বয়সে বিয়ে করলে হয়তো কেরিয়ারে তার প্রভাব পড়তে পারে। এই ভেবেই বিয়ের প্রস্তাবে প্রথমে রাজি ছিলেন না অভিনেত্রী।

এছাড়াও বিয়ে মানে শুধু নতুন সম্পর্ক না, বিয়ের মানে দায়িত্বও। বলিউডের কাজ সামলে সংসার সামলানোটা শিল্পার পক্ষে সম্ভব হবে কি না সেটাও ছিল প্রশ্ন। তাছাড়া বিয়ের পরে পরিবারের তরফে মা হবার চাপ দেওয়া হতে পারে বা শিল্পা নিজেও মা হতে চাইবেন তখন কেরিয়ারের ক্ষতি হতে পারে এই সমস্ত ভেবেই বিয়ের জন্য প্রথমদিকে রাজি হননি শিল্পা। তবে শেষমেশ রাজের সাথেই সাত পাকে বাধা পড়েন।

Related Articles

Back to top button