খবরগসিপবিনোদনসিনেমা

গল্প নয় একদম সত্যি! নিজের শরীরের রক্ত দিয়েই ডিম্পলের সিঁথিতে সিঁদুর দিয়েছিলেন বিক্রম বাত্রা

১৫ অগাস্ট স্বাধীনতা দিবসের দিন ওটিটি প্লাটফর্ম অ্যামাজন প্রাইমে মুক্তি পেয়েছে ‘শেরশাহ’ (Shershah)। কার্গিল যুদ্ধের বীর যোদ্ধা তথা শহীদ বিক্রম বাত্রার বায়োপিক এই ছবিটি। সিনেমায় বিক্রম বাত্রার চরিত্রে অভিনয় করেছেন সিদ্ধার্থ মালহোত্রা (Sidharth Malhotra) এবং তাঁর বাগদত্তা ডিম্পল চিমার চরিত্রে অভিনয় করেছেন কিয়ারা আডবাণী (Kiara Advani)। ছবিটি সুপারহিট তো হয়েছেই, তবে ছবির কাহিনী মন ছুঁয়েছে দর্শকদেরও।

অবশ্য শুধু দর্শকরাই নন সিদ্ধার্থ কিয়ারার অভিনয় দেখে মুগ্ধ শহীদ বিক্রম বাত্রার (Vikram Batra) বাবা গিরিধারী লাল বাত্রা এবং মা কমল কান্তা বাত্রাও। সিদ্ধার্থ কিয়ারা দুজনের অভিনয়ই তাঁদের পছন্দ হয়েছে। তাই সিনেমাটির ঢালাও প্রশংসা করে তারা জানিয়েছেন ‘শেরশাহ একটি খুব সুন্দর ছবি। সিদ্ধার্থ আর কিয়ারা খুব ভালো কাজ করেছে।’  ছবির এই সাফল্যে অভিনেতা অভিনেত্রী থেকে পরিচালক সকলেই খুব খুশি।

বিক্রম বাত্রার বাবা -মা জানিয়েছেন কিয়ারাকে একেবারেই ডিম্পলের  (Dimple) মতোই মনে হয়েছে। সেসময় কার্গিল যুদ্ধ একেবারে তছনছ করে রেখে দিয়েছিল ডিম্পলের ব্যাক্তিগত জীবন। বিয়ের তারিখ পাকা হয়ে গেলেও শেষ পর্যন্ত তাঁদের আর বিয়েটা হয়নি। কিন্তু ডিম্পল নিজেকে বিক্রমের স্ত্রী মনে করত তাই বিক্রমের মৃত্যুর পর দুই পরিবারের তরফে তাঁকে অনেক বোঝানো হলেও নিজের সিদ্ধান্তে অনড় থেকে সারাজীবন অবিবাহিত থেকে গিয়েছে সে।

তবে ছবির জন্য যখন বিক্রমের কাহিনী জানতে চাওয়া হয়েছিল তখন একটি ঘটনা শুনে চমকে গিয়েছিলেন খোদ লেখক নিজেও। সেই ঘটনা দেখানো হয়েছে ছবিতেও যেটা দর্শকদের মন ছুঁয়ে গিয়েছে।  ছবিতে একটি দৃশ্যে দেখানো হয়েছে বিক্রম নিজের হাতের আঙুলের রক্ত দিয়ে সিঁদুর পরিয়ে  দিচ্ছে ডিম্পলকে। অনেকেই হয়তো ভেবেছেন এটি ছবির কাহিনীকে আরো আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য করা হয়েছে। কিন্তু আসলে তা একেবারেই নয়। সত্যিই এমনটা করেছিলেন বিক্রম বাত্রা। যেটা শুনে প্রথমে বিশ্বাসই করতে পারেননি সন্দীপ।

শেরশাহ ছবির লেখকের মতে, ছবিটিকে নিছক দেশপ্রেমের গল্প হিসাবে তুলে ধরতে চাওয়া হয়নি। বিক্রম বাত্রার জীবন কাহিনী নিয়ে তৈরী হওয়া ছবিতে বাস্তব ঘটনাগুলোকেই তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে। তাই এই ধরণের ঘটনাগুলি ছবি থেকে বাদ দেওয়ার কোনো প্রশ্নই ছিল না। তবে ছবিটি দর্শকদের মন ছুঁয়েছে, তেমনি সাফল্যও পেয়েছে।

Related Articles

Back to top button