গসিপবিনোদনসিনেমা

আইন সবার জন্য সমান, তাই পর্ণ দেখাও সমান দোষের! বিস্ফোরক শার্লিন চোপড়া

পর্ণোগ্রাফিক কনটেন্ট বানানোর অভিযোগে গত ১৯ জুলাই শিল্পা শেঠির (Shilpa Shetty) স্বামী রাজ কুন্দ্রাকে (Raj Kundra) গ্রেপ্তার করেছে মুম্বাই পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ। তারপর থেকেই জেলবন্দী জীবন কাটাচ্ছেন রাজ। অন্য দিকে রাজের গ্রেফতারির পর থেকে একের পর এক উঠে আসতে শুরু করে চাঞ্চল্যকর তথ্য। তারপর থেকেই কার্যত শোরগোল পড়ে গিয়েছে গোটা দেশে। হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটসহ ,অন্যান্য একাধিক তথ্য প্রমাণের ওপর ভিত্তি করেই পুলিশের দাবি পর্নোগ্রাফি ভিডিয়ো তৈরির কাজে মূল ষড়যন্ত্রকারী হলেন রাজ কুন্দ্রা।

ইতিমধ্যেই এই মামলায় একের পর এক মুখ খুলেছেন রাজের এই সমস্ত অশ্লীল ছবির নায়িকারা।এই মামলায় প্রথম থেকেই শিরোনামে ছিলেন মডেল অভিনেত্রী শার্লিন চোপড়া (Sherlyn Chopra)। ইতিমধ্যেই মুম্বই পুলিশের ৮ ঘন্টার ম্যারাথন জেরার মুখে পড়েছিলেন শার্লিন চোপড়া। তা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রকাশ্যে মন্তব্য করেছেন শার্লিন। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন তিনি।

Sherlyn Chopra Sexual Harassment case on Raj Kundra

তাঁর অভিযোগ পর্নোগ্রাফি নিয়ে মন্তব্য করে এর আগে একাধিকবার ট্রোলের মুখে পড়তে হয়েছে তাঁকে। এপ্রসঙ্গে সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন,’আমি যখনই পর্নোগ্রাফি নিয়ে কথা বলতে গিয়েছি আমাকে ট্রোল করা হয়েছে। ২০১২-এ একটি অ্যাডাল্ট ম্যাগাজিন প্লে বয়ের জন্য শুট করেছিলাম। সত্যিই বোল্ড কনটেন্ট শুটিং করা নিয়ে আমার কোনও আপত্তি ছিল না।’

Sherlyn Chopra শার্লিন চোপড়া

সেইসাথে তার আরও দাবি ‘কিন্তু যখন আইন অমান্য করা হচ্ছে, তখন তা নিয়ে তো প্রশ্ন থাকবেই। কোনও কর্তৃপক্ষই বেআইনি পর্নোগ্রাফিকে সমর্থন করবে না। সুতরাং যাঁরা বলেন, আমরা পর্নোগ্রাফি দেখি, এতে ভুল কী আছে? তাঁদের মনে রাখতে হবে, সরকার সব পর্ন ওয়েবসাইটকে নিষিদ্ধ করেছে।’ শার্লিনের কথায়, আইন সকলের মেনে চলা উচিত। যাঁরা পর্নোগ্রাফি দেখছেন, তাঁদেরও দোষ রয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

এছাড়াও শার্লিনের অভিযোগ, ‘রাজের সম্মতি ছাড়া কোনও মহিলা ওই অ্যাপে কাজ করতে পারেন না, এটা সত্যি। কিন্তু যাঁরা কাজ করেছেন, তাঁদের সম্ভবত ভুল বোঝানো হয়েছিল। পর্নোগ্রাফি নিয়ে ভারতের আইন সম্পর্কে তাঁরা জানতেন না বলেই মনে হয়। সে কারণেই অনুরোধ করছি, যারা এর শিকার সকলে এগিয়ে আসুন, কী ভাবে তাঁদের অফার করা হয়েছিল গোটা দুনিয়ার সামনে জানান।’

Related Articles

Back to top button