গসিপবিনোদন

গানের জন্য ৭০ লক্ষ্য টাকা নেন! শাহরুখের হাতে চড় খেয়ে দু’বছর নিরুদ্দেশ ছিলেন হানি সিং

র‍্যাপ স্টার হানি সিং-এর (hone ysingh) গান মানেই তা যে সুপারহিট হবেই তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা। পুজোর প্রতিটা মন্ডপ থেকে ভাসান হানি সিং-য়ের গান ছাড়া যেন জমেই না। কোনোরকম গড ফাদার ছাড়াই নিজের প্রতিভার জোরে বলিউডে নিজের পরিচয় তৈরি করেছিলেন গায়ক। তিনি একাধারে র‍্যাপার, পপগায়ক, সুরকার, গীতিকার সবই।

ইউটিউব থেকে কেরিয়ার শুরু হলেও খুব অল্পসময়ের মধ্যেই তিনি বলিউডের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক প্রাপ্ত গায়কদের একজন হয়ে ওঠেন। অমিতাভ, শাহরুখ, সলমনের মতন প্রথম সারির তারকাদের সাথেও কাজ করেছেন তিনি। কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে কেরিয়ার শুরুর দিন কয়েক পরেই দু’বছরের জন্য অদৃশ্য হয়ে যান হানি। বলিউডে পা রাখার পরপরই তার কম্পোজ করা গান তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেন।

এর পর ‘মস্তান’ ছবির গানের প্রস্তাব পান তিনি। এই ছবির একটি গানের জন্য ৭০ লাখ টাকা পারিশ্রমিক নিয়েছিলেন তিনি। এখনও পর্যন্ত বলিউডে একটি গানের জন্য এটিই সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক। শাহরুখ দীপিকার ছবি চেন্নাই এক্সপ্রেসের বিখ্যাত গান ‘লুঙ্গি ডান্স’ আজও জনপ্রিয়।

শোনা যায়, একটি অনুষ্ঠানে গিয়ে শাহরুখের সঙ্গে অন স্টেজ তর্ক জুড়ে দেন গায়ক। কিং খান এই বিষয়টিকে মেনে নিতে পারেননি, তাই প্রকাশ্যেই তাকে চড় মারেন শাহরুখ। এই বিষয় নিয়ে সেই সময় তুমুল বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। যদিও শাহরুখের এই ব্যবহারের কোনো শক্তপোক্ত কারণ জানা আজও যায়নি। কিন্তু অদ্ভুতভাবে এরপর প্রায় বছর দুয়েক সব খান থেকে নিরুদ্দেশ হয়ে গিয়েছিলেন হানি সিং।

প্রসঙ্গত, দিল্লির তিস হাজারি আদালতে হানি সিংয়ের বিরুদ্ধে গার্হস্থ্য হিংসা এবং যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেছেন হানির স্ত্রী শালিনী তলওয়ার (Shalini Talwar)। মামলার জেরে ইতিমধ্যেই নোটিস পাঠানো হয়েছে হানি সিংয়ের কাছে। আগামী ২৮ শে আগস্টের মধ্যে জবাব চাওয়া হয়েছে। নোটিশে সম্পত্তির মালিকানা নিয়েও কিছু নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। চিফ মেট্রোপলিট্যান ম্যাজিস্ট্রেট তানিয়া সিংয়ের এজলাসে মামলাটি বিচারাধীন। ২০১৩ সালে ২৩শে জানুয়ারি সানি ভালোবেসে বিয়ে করেন শালিনী তলয়ারকে।

Related Articles

Back to top button