বিনোদন

সঞ্জয় লীলা বনশালীর নতুন আবিষ্কার সাইনি দোশীর যৌবনের আগুনে পুড়ে ছাড়খার নেটপাড়া

২০১৩ সালে সঞ্জয় লীলা বনশালীর ‘সরস্বতীচন্দ্র’ ধারাবাহিকের হাত ধরে প্রথম রুপোলি পর্দায় আগমন সাইনি দোশীর (saini doshi)। তারপর থেকেই টিভিজগতে পরিচিত মুখ সাইনি। এমনও শোনা যায়, শুধুমাত্র এই অভিনেত্রী-মডেলকে দেখার জন্য টিভির সামনে বসে পড়েন বহু দর্শক! এই অভিনেত্রীর ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে নতুন ছবিগুলি দেখে রীতিমত আলোচনা শুরু হয়েছে বনশালীর ভক্তকুলে।

গুজরাটনিবাসী সাইনির পর্দায় প্রথম আগমন ‘সরস্বতীচন্দ্র’ ধারাবাহিকে কুসুম দেশাই চরিত্রে। এরপর ক্রমে ‘সরোজিনী’, ‘জামাই রাজা’ ও ‘শ্রীমদ ভগবৎ মহাপুরাণ’ সহ বহু ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় সাইনির উপস্থিতিও যথেষ্ট মনোমুগ্ধকর ফ্যানফলোয়ারদের কাছে। সাইনির বিকিনি পরিহিত সুঠাম দেহের আকর্ষণে বহু তরুণই ফলো করে অভিনেত্রীকে। বলিপাড়ার মতে, জল দেখলেই যেন জলপরী হয়ে ওঠেন সাইনি!

অভিনয়ের পাশাপাশি সাইনি যে কতটা রোমাঞ্চ ভালোবাসেন, তা বোঝা যায় ২০১৭-এ বিগবসে তাঁর অংশগ্রহণের ঘটনায়। এরপর ‘বক্স ক্রিকেট লীগ’-এর মত রিয়েলিটি শোতেও দেখা যায় তাঁকে। ২০১৬ সালে ‘বহু হামারি রজনীকান্ত’-এ আধারা ঘোষের চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। পর্দায় তাঁকে শেষ দেখা যায় ‘শ্রীমদ ভগবৎ মহাপুরাণ’-এ রাধার চরিত্রে।

কেরিয়ারের শুরুতে নিতান্তই মডেলিং জগৎ থেকে শুরু করলেও পরবর্তীতে সঞ্জয় লীলা বনশালীর হাত ধরে বলিমহলে উত্তীর্ণ হন সাইনি। ১৯৮৯ সালে আহমেদাবাদে সাইনির জন্ম। অভিনেত্রীর বাবা পেশায় কৃষিবিজ্ঞানী। সাইনির বন্ধুমহল জানাচ্ছে, জল দেখলেই নিজেকে আর ধরে রাখতে পারেন না তিনি। সমুদ্রতট হোক বা সুইমিং পুল, সাইনি নেমে পড়েন নির্দ্বিধায়!

সম্প্রতি সাইনি জানিয়েছেন, “অভিনয় জগতে আসার কোনো ইচ্ছাই ছিল না আমার। আমি ফ্যাশন ডিজাইনার হতে চেয়েছিলাম।” যদিও প্রায় ৫লক্ষ ফলোয়ারের সান্নিধ্যে সাইনির ইন্সটা হ্যান্ডেল যথেষ্ট জনপ্রিয়। মাঝেমধ্যেই তাঁর ভ্রমণ ও ফটোশ্যুটের ছবি ভাইরাল হয় সামাজিক মাধ্যমে।

Related Articles

Back to top button