গসিপবিনোদন

অঙ্কুশ হোমো-ফোবিক তাই আমায় ব্লক করেছে! অপমানিত হয়ে মুখ খুললেন স্যান্ডি সাহা

জনপ্রিয়তার দিক থেকে টলিউডের প্রথম সারির অভিনেতা অঙ্কুশ হাজরা (Ankush Hazra) অন্যদিকে, ইউটিউবার (Youtuber) স্যান্ডি সাহাকে (Sandy saha) এমন মানুষ বাংলায় নেই বললেই চলে। নিজের নানারকম কীর্তির জন্য বহুল চর্চিত তিনি। মুখে ‘কাদা কাদা’ করে ‘প্যাক’ লাগিয়ে লাইভে এসেই সকলের লাইমলাইট কেড়ে নিয়েছিলেন স্যান্ডি। তারপর সেই ধারা অব্যাহত রেখেই কখনো মেয়ে সেজে, কখনো হিরো আলমের সঙ্গে নেচে, কখনোবা দুষ্টু দুষ্টু রসালো ভিডিও বানিয়ে বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছেন বাংলার এই ইউটিউবার।

তাবড়-তাবড় অভিনেতা অভিনেত্রীদের ইন্টারভিউ করেছেন স্যান্ডি। সবসময়ই ঠাট্টার মেজাজে তারকাদের নিয়ে ছোট বড় কথাও বলে থাকেন তিনি। এদিন তার এই ঠাট্টাই যেন সমস্ত সীমা অতিক্রম করে গেল। ঐন্দ্রিলা সেন অর্থাৎ টলি অভিনেতা অঙ্কুশের প্রেমিকার ছবির নীচে কমেন্ট বাক্সে হাতির ছবি পোস্ট করেন স্যান্ডি, যাকে ব কলমে ‘বডিশেমিং’ বললেও ভুল হয়না। মনে করা হয় এরপর থেকেই বিবাদ শুরু হয় স্যান্ডি অঙ্কুশের। অঙ্কুশ স্যান্ডিকে ফেসবুকে ব্লক করেন বলেও জানা যায়।

এরপর থেকেই অঙ্কুশের উপর বিভিন্ন মাধ্যমে ক্ষোভ উগড়ে দিতে শুরু করেন স্যান্ডি। ইউটিউবারের কথায়, ‘অঙ্কুশ আসলে হোমোফোবিক তাই আমায় ভয় পায়,হিংসেও করে, এবং সেই কারণেই ও আমায় ব্লক করেছে। ‘ অঙ্কুশ তাকে ইন্ডস্ট্রিতে কাজ করতে দেবেন না বলে হুমকি দিয়েছিলেন, এমন অভিযোগও করেন স্যান্ডি।

এদিকে অঙ্কুশ এই অভিযোগ সম্পূর্ণ উড়িয়ে দিয়ে জানান, অঙ্কুশের ফেসবুক দেখভাল করেন তার সহকারীরা, তাই স্যান্ডিকে সে ব্লক করেনি। এমন তুচ্ছ বিষয়ে মাথা ঘামানোর সময় নেই তার। সেই প্রসঙ্গে ইউটিউবারের বক্তব্য, ‘‘বিশ্বাস করি না। তাঁর ফেসবুক প্রোফাইলে কী হচ্ছে না হচ্ছে সেটা উনি জানেন না? আর উনি যদি এ সব পাত্তাই না দেন, তা হলে আমি ভিডিয়ো আপলোড করলেই ফোন করে হুমকি দেন কেন?’ এর আগেও নাকি অঙ্কুশের ভিডিও আপলোড করার কারণে স্যান্ডিকে হুমকি দিয়েছিলেন খোদ অভিনেতা। এখন এই তরজা কোথায় গিয়ে শেষ হয় এখন সেটাই দেখার।

Related Articles

Back to top button