বিনোদন

ঠকিয়েছিলেন ভাগ্যশ্রী! ম্যায়নে পিয়ার কিয়ার মতো সুপারহিট ছবি করেও ৩ – ৪ মাস বেকার ছিলেন সলমন খান

সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে সালমান খানের (Salman Khan) বহু প্রতীক্ষিত ছবি ‘রাধে (Radhe)’। তবে কথায় আছে ‘যত গর্জায়, তত বর্ষায় না’। একথটা বলিউডের ভাইজানের লাস্ট রিলিজের ক্ষেত্রে একেবারে প্রযোজ্য। দর্শকদের প্রত্যাশা পূরণে পুরোপুরি ব্যর্থ এই সিনেমা। বহু প্রতীক্ষিত এই ছবিটি ছিল সালমান খানের ‘ওয়ান্টেড’ সিনেমার সিক্যুয়াল ‘রাধে : দ্যা মোস্ট ওয়ান্টেড’। তবে দর্শকদের দাবি ট্রেলর দেখে যতটা আশা করা হয়েছিল তার নাকি কিছুই নেই ছবিতে।

‘ম্যায়নে পেয়ার কিয়া’ সলমনের জীবনের খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা ছবি। এই ছবিতে সলমনের ‘প্রেম’ চরিত্রটি বিপুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিল। তবে এরপর এই ছবির জন্য বেশ সমস্যার মুখেও পড়েছিলেন সলমন খান। ছবিতে সলমনের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন ভাগ্যশ্রী ( Bhagyasree )।

এই ছবিতে ভাগ্যশ্রীর অভিনয়ে মন মজেছিল সকলেরই। কিন্তু এই সিনেমা করার পরেও সলমনের হাতে ৩ ৪ মাস কোনোও কাজ ছিলনা। জনপ্রিয় টেলিভিশন শোয়ে এসে সলমন বলেছিলেন, এই ছবি করার পরেই সলমন ভেবেছিলেন ভাগ্যশ্রীকে বিয়ে করবেন। আর এর পরেই বাধে বড়সড় বিপত্তি।

ছবির সমস্ত ক্রেডিট এরপর একাই নিয়ে নেন ভাগ্যশ্রী। সলমন দুঃখ করে বলেছিলেন, এমন মনে হত যেন আমি ওখানে ছিলামই না, সিনেমায় যা ঘটেছে তার শুরু এবং শেষ শুধুই ভাগ্যশ্রী ম্যাডাম। এরপর ভীষণ ভাবে ভেঙে পড়েন সলমন।
প্রসঙ্গত ভাইজান বলেছিলেন, ম্যানে প্যার কিয়া উপলক্ষে তিনি ৩১,০০০ টাকা পারিশ্রমিক পেয়েছিলেন তবে এই ঘটনার পর থেকে সলমনের কাজের প্রতি নিষ্ঠা এবং দক্ষতা দেখার পরেই তার রেঞ্জ বাড়িয়ে ৭৫,০০০ করে দেওয়া হয়। অবশ্য এমন কঠিন অবস্থার পর পরিশ্রমই তাকে আবার হারানো সাফল্য ফিরিয়ে দিয়েছিল।

Related Articles

Back to top button