গসিপবিনোদনসিনেমা

প্রকাশ্যে মদ্যপ অবস্থায় ভাইজানকেই কষিয়ে থাপ্পড়! কোনোমতে নিজেকে সামলেছিলেন সালমান খান

বলিউডের অভিনেতা সালমান খান (Salman Khan) নামটাই যথেষ্ট ভক্তদের জন্য। শুধুমাত্র ভারতেই নয় দেশের বাইরে গোটা পৃথিবী জুড়েই ভাইজানের ভক্তরা ছড়িয়ে রয়েছে। তবে বলিউডের দৌলতে জনপ্রিয় হলেও বহুবার বিতর্কে জড়িয়েছেন অভিনেতা। আইনি জটিলতায় নাম জড়িয়ে যেমন নাম খারাপ করেছেন তেমনি ‘বিয়িং হিউম্যান’ নামের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার মধ্যে দিয়ে প্রশংসাও কুড়িয়েছেন। তবে জানেন কি একবার এক মেয়ে ভাইজানকে থাপ্পড় মেরেছিল সবার সামনে।

হ্যাঁ ঠিকই দেখছেন! দিল্লির এক মেয়ে সকলের সামনেই ভাইজানের গালে চড় মেরে দিয়েছিল। তবে রেগে গিয়ে মাথা গরম নয় বরং ঠান্ডা মাথায় পরিস্থিতি সামাল দিয়েছিলেন অভিনেতা। কিন্তু হটাৎ কি এমন হয়েছিল যে সালমান খানের গালে চড় মারল মেয়েটি? আজ সেই কাহিনীই তুলে ধরব আপনাদের সামনে।

ঘটনাটা ২০০৯ সালের দিল্লিতে একটা পার্টির আয়োজন করা হয়েছিল। যে পার্টিতে একাধিক বলিউড তারকারা হাজির হয়েছিলেন। সেই প্রাইভেট পার্টিতে ঢুকেই সালমান খানকে থাবড়ে দিয়েসিললেন বড়লোক বিল্ডারের মীর মণিকা। অবশ্য শুধু সালমান খানকে থাপ্পড় মেরেই শেষ হয়নি তার কীর্তি। সালমানের ভাই সোহেল খান, অভিনেত্রী সুস্মিতা সেন, শিবানী কাশ্যপদের মত তারকাদের সাথেও দুর্ব্যবহার করেছিল মেয়েটি।

তবে যেমনটা জানা যায় রাগের মাথায় মেয়েটির সাথে দুর্ব্যবহার করেননি সালমান। যদিও সালমান খান নিজের গরম মেজাজের জন্য বিটাউনে বেশ কুখ্যাত, তবে সেদিন একেবারেই মাথা ঠান্তা রেখেছিলেন। প্রথমে মেয়েটি মদ্যপ অবস্থায় এসে প্রাইভেট পার্টিতে ঢোকার জন্য গার্ডের সাথে ঝামেলা করতে শুরু করেছিল। এরপর হৈচৈ শুনে সালমান নিজে সেখানে যান। সেখানে গিয়ে দেখেন মেয়েটি সুস্মিতা সেনকে গালি দিচ্ছে ও নোংরা  ভাষার ব্যবহার করে মন্তব্য করে চলেছে।

এসবের পর সালমান খান খুব ভালোভাবেই তাকে সেখান থেকে চলে যেতে বলে। কিন্তু সেখান থেকে যাবার বদলে সালমানকেই চড় মেরে দেয় মেয়েটি। সালমানের গায়ে হাত তোলায় মুহূর্তের মধ্যেই লোক জড়ো হয়ে যায় সেখানে। তবে সেই পরিস্থিতিতেও নিজেকে শান্ত রেখে ভেতরে চলে যান সালমান খান।

Related Articles

Back to top button