গসিপবিনোদনসিনেমা

একঘেয়ে জীবন আর নয়! করোনাকালে মন ভালো করার অনুষ্ঠান নিয়ে আসছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত

করোনা অতিমারির জেরে উৎসবপ্রিয় মানুষ দিন দিন হয়ে পড়েছেন উৎসব বিমুখ। বিগত প্রায় দেড় বছরেরও বেশী সময় ধরে মানুষের জীবন থেকে স্বাভাবিক শব্দটাই যেন উধাও হয়ে গিয়েছে। তাই এই বেরঙিন জীবনে একটু একটু রঙ ভরে দিতে এবার একেবারে নতুন অবতারে ধরা দিতে চলেছেন বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত (Rituparna Sengupta)। তাই কালার্স টিভির নতুন শো ‘রিস্তা’র (Rishta) মাধ্যমে দর্শকদের জানাবেন মন ভালো রাখার কথা। আগামীকাল অর্থাৎ ১ আগস্ট থেকেই শুরু হতে চলেছে অভিনেত্রীর এই নতুন অনুষ্ঠান।

করোনা কালে সোশ্যাল ডিসটেন্সের নামে মানুষের সাথে মানুষের দূরত্ব দিনে দিনে বেড়েই চলে। যার জেরে গোটা সমাজ থেকেই আজকাল আমরা সকলেই একপ্রকার বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছি। পাশাপাশি মহামারি আমাদের একপ্রকার চোখে আঙুল দেখিয়ে দিয়েছে আজকের এই অস্থির পরিস্থিতিতে মানুষের পাশে মানুষের প্রয়োজন কতখানি। আর এই পাশে থাকার অর্থ যে শুধু শারীরিক ভাবে নয় বরং মানসিক ভাবেও পাশে থাকাটা অনেক বেশি করে প্রয়োজন তা সকলেই বেশ উপলব্ধি করেছেন।

Rituparna Sengupta

আর সেই পাশে থাকার বার্তা নিয়েই নিজের নতুন শো ‘রিস্তা’ নিয়ে হাজির হতে চলেছেন অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। গতকাল ইনস্টাগ্রামে (Instagram) এই শোয়ের আনুষ্ঠানিক দিন ঘোষণা করে তিনি লিখেছেন, ‘মন, শরীর এবং আত্মা, এই তিনটি আমাদের জীবনের সম্পদ। পজিটিভ এবং আনন্দে থাকার অভ্যেস আমাদের তৈরি করতে হবে। আমি ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত আগামী ১ অগস্ট থেকে আসছি একেবারে নতুন শো রিস্তা নিয়ে। মনকে ভাল রাখার গল্প বলতে আসছি। জীবনকে নতুন ভাবে দেখার গল্প নিয়ে আসছি। সঙ্গে থাকবেন।’

সিঙ্গাপুরে স্বামী, সন্তানদের নিয়ে ঘরসংসার সামলানোর পাশাপাশি মহামারিকালে শুরু থেকেই নিজেকে যতটা সম্ভব পজিটিভ রেখেছেন অভিনেত্রী। আর সেইজন্যই কখনও কবিতা লিখে,তো কখনও নিজের ইউটিউব চ্যানেলে গান গেয়ে, নাচ করে প্রতিদিন নিজের অনুরাগীদের কাছে পৌঁছে যাচ্ছেন ঋতুপর্ণা।

এবার দর্শকদের আরও কাছাকাছি পৌঁছে যেতে অভিনেত্রী জানিয়েছেন ‘এখন আমরা এক কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। এই সময়টায় সাধারণ মানুষের সঙ্গে যুক্ত হতে চেয়েছি, তাঁদের জীবনে একটু পজিটিভিটি আনতে চাই। যাতে সব দুশ্চিন্তা ভুলিয়ে দিনগুলো তাঁদের সুন্দর হয়ে ওঠে এবং জীবনে পজিটিভিটি ছড়িয়ে পড়ে।’ তাই ঋতুপর্ণা মনে করেন এই শো ওনার কাছে একটা জার্নির মতো,যা তাঁকে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কানেক্ট করবে।

Related Articles

Back to top button