গসিপবিনোদনসিরিয়াল

এখনকার ধারাবাহিক একঘেয়ে! বর্তমানে ইন্ডাস্ট্রির উপর বিরক্ত বর্ষীয়ান অভিনেত্রী রত্না ঘোষাল

গত কয়েক দশক ধরেই ধারাবাহিকে এক চেটিয়া রাজ করছেন অভিনেত্রী রত্না ঘোষাল। ছোট পর্দা থেকে বড় পর্দার দাপুটে অভিনেত্রী তিনি। এত বয়স গেলেও তার অভিনয় হার মানায় যেকোনো নিউকামারদের। উত্তম কুমার, সাবিত্রী চ্যাটার্জি, রঞ্জিত মল্লিকের মতো তাবড়-তাবড় তারকাদের সাথে পর্দা ভাগ করেছেন এই বর্ষীয়ান অভিনেত্রী। বর্তমানে ‘খড়কুটো’ ধারাবাহিকে খুব গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করছেন রত্না ঘোষাল।

বয়স হলেও আজকালকার অভিনেত্রীদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে অভিনয় করছেন তিনি। ‘মৌচাক’ ছবিতে তার বিখ্যাত সংলাপ আজও মানুষের মনে রয়েছে। “সাহেবরা নাকি ঢেঁড়সকে লেডিস ফিঙ্গার মেয়েদের আঙ্গুল বলে” – ছবিতে সেই ছিপছিপে মিষ্টি মেয়েটিই আজকের বর্ষীয়ান অভিনেত্রী। এই রত্না ঘোষাল অভিনেত্রী মহুয়ার খুব কাছের বান্ধবী ছিলেন।

khorkuto খড়কুটো জেঠাইয়ের বিয়ে

তবে নিজের কেরিয়ার জীবনে অসংখ্য দুর্দান্ত চরিত্রে অভিনয় করলেও বেশিরভাগই পার্শ্বচরিত্রে দেখা গিয়েছে তাকে। তিনি ‘রাজা রামমোহন’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে এই জগতে পা রাখেন। এরপর তিনি প্রায় পঞ্চাশটিরও বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। তাঁর উল্লেখযোগ্য কিছু বাংলা সিনেমাআ হল – ‘ছোট বউ’, ‘স্বয়ংসিদ্ধা’, ‘দেনা পাওনা’, ‘অচেনা অতিথি’, ‘মৌচাক’ এবং অন্যান।

এই মুহুর্তে চোখে মুখে তার বয়সের ছাপ স্পষ্ট। তবে অভিনয় এখনও পর্যন্ত ছাড়েননি তিনি। বাংলা সিরিয়াল ‘কনক কাঁকন’, ‘হৃদয়হরণ বি-এ পাস’, ‘কলের বৌ’ ও ‘কেশব’ ধারাবাহিকের পর এখন তিনি খড়কুটোর ঠাম্মা।

তবে এই বর্ষীয়ান অভিনেত্রীর মতে এখনকার ধারাবাহিকের গল্প খুব একঘেয়ে। কোনোও নতুনত্ব নেই। তার কথায়, আগেকার দিনে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কাজ হত, যেমন আশির দশকে জোছন দস্তিদারের পরিচালনায় ‘সেই সময়’ হয়েছিল। পার্ট নিয়ে পরিশ্রম করার জন্য একটা গোটা সপ্তাহ পাওয়া যেত। আজকাল সে সব ভাবাই যায় না। প্রযুক্তি উন্নত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বাংলা ধারাবাহিকের গুণগত মানও অনেক পড়ে গেছে

Related Articles

Back to top button