খবরবিনোদন

আবারও অভিনেত্রীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, সন্দেহের তীর প্রেমিক তথা লিভ ইন সঙ্গীর দিকেই

বিনোদন জগতে যেন গ্রহণ লেগেছে! একের পর এক অভিনেত্রীদের মারা যাবার খবর মিলছে। বিগত কয়েক মাসে একেরপর এক অভিনেত্রীর মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। এপর্যন্ত ৪ জনের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সম্প্রতি আরও একটি মৃত্যুর খবর এল। আজ রশ্মিরেখা ওঝা (Rashmirekha Ojha) নামের এক অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মৃত দেহ উদ্ধার হয়েছে। খবর প্রকাশ্যে আসার পর থেকে স্বাভাবিকভাবেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে।

যেমনটা জানা যাচ্ছ, ওড়িয়া ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির অভিনেত্রী রশ্মিরেখা। ইন্ডাস্ট্রিতে বেশ জনপ্রিয় ছিলেন তিনি। কিন্তুই আজ ভুবনেশ্বরের নিজের বাড়ি থেকেই অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মৃত দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। যখন অভিনেত্রীকে উদ্ধার করার জন্য পৌঁছানো হয় তখন গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছিল তাকে।

Rashmi Rekha Ojha hanging body found

ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারের পর পালিশ তদন্ত শুরু করেছে। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে আত্মহত্যা করেছেন অভিনেত্রী। তবে কি জন্য বা কেন আত্মহত্যা করলেন অভিনেত্রী সেটা ঠিক স্পষ্ট নয়। ঝুলন্ত দেহের পাশাপাশি একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে পুলিশ। যেখানে লেখা রয়েছে যে তাঁর মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়।

তবে অভিনেত্রীর পরিবারের মতে আত্মহত্যা নয় বরং খুন করা হয়েছে তাকে। আর এই পরিণতির জন্য অভিনেত্রীর প্রেমিক তথা লিভ ইন পার্টনারকে দায়ী করেছেন রশ্মিরেখার বাবা। তাঁর মত, গত শনিবারেই মেয়েকে ফোন করেছিলেন, কিন্তু কথা হয়নি। লিভ ইন সঙ্গী সন্তোষই প্রথম অভিনেত্রীর বাবাকে ফোন করে এই খবর দেন। মেয়ের মৃত্যুর খবর শুনে ভেঙে পড়েন বাবা।

মৃত্যুকালীন অভিনেত্রীর বয়স হয়েছিল মাত্র ২৩ বছর। তাই এত কম বয়সে জীবনের এমন একটা চরম সিদ্ধান্ত কেন নিলেন তিনি সেটার জন্য তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অভিনেত্রীর দেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। এছাড়াও তদন্তের জন্য ইতিমধ্যেই লিভ ইন সঙ্গী সন্ত্রাস পাত্রকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন পুলিশ। আশা করা হচ্ছে শীঘ্রই আত্মহত্যা নাকি খুন করা হয়েছে সেটা সামনে আসবে।

Related Articles

Back to top button