খবরবিনোদন

গয়না দেখিয়ে ট্রোলের শিকার, ‘আমি মরে গেলেও…’, নেটপাড়ায় নিন্দুকদের পাল্টা জবাব সুদীপার

সুদীপা চ্যাটার্জী (Sudipa Chatterjee) নামটা বর্তমানে নেটপাড়ায় বহু চর্চিত। ‘জি বাংলার রান্নাঘর’ (Zee Bangla Rannaghor) শোয়ের সঞ্চালিকা তিনি। তবে প্রতিনিয়ত তাকে ট্রোলের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। সোশ্যাল মাধ্যমে পোস্ট করলেই শুরু হচ্ছে কাটা ছেঁড়া, ঝড় উঠছে সমালোচনার। এই যেমন কিছুদিন আগেই শাড়ি ও গয়নার একটি পোস্ট করেছিলেন অভিনেত্রী। যার জেরে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল তাকে। এবার রেস্তোরায় পরিবারের সাথে খেতে গিয়ে আবারও অপমানিত সুদীপা।

সম্প্রতি কোনো এক নামি রেস্তোরায় খেতে গিয়েছিলেন সুদীপা ও স্বামী অগ্নীদেব চ্যাটার্জী। অভিনেত্রীর বাড়িতে প্রতিবছর দূর্গাপুজো হয়। এবছরেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। বাড়ির পুজোয় খাটাখাটনি পর অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন তিনি। তাই মন ভালো করতে সুদীপাকে নিয়ে রেস্তোরায় গিয়েছিলেন স্বামী। সেখানে খাবার খাওয়ার পাশাপাশি মন ভালো হওয়ায় ছবিও শেয়ার করেছিলেন নেটপাড়ায়।

Sudipa Chatterjee

ছবি শেয়ার করে লিখেছিলেন, ‘অসুস্থ হওয়ার সুবিধা’। কিন্তু এই ছবি শেয়ার করেও কটাক্ষের সম্মুখীন হতে হয় অভিনেত্রকে। সুইগি বিতর্ক উস্কে কেউ জিজ্ঞাসা করছেন, ‘দরজা কে খুলে দিল?’ যার উত্তরে অভিনেত্রী নিজেই মজা করে লিখেছেন ‘দারোয়ান’। এমন অনেককেই জবাব দিয়েছেন মজার হকালেই।

আবার কেউ বলেছেন, ‘জীবনে এইটুকু বড়লোক হতে চাই… যাতে মদের গ্লাসের ফ্রায়েড রাইস খেতে পাই!’ তাকে ভুল শুধরে দিয়ে সুদীপা জানান, ‘ওটা ফ্রায়েড রাইস নয়। ওটা আসলে প্রন আর অ্যাভোকাডো স্যালাড। অনেকটা প্রন ককটেলের মত’। কিন্তু এতে সমালোচনা মোটেই শেষ হয়নি, লাগাতার কমেন্ট হয়েই চলেছে।

নেটিজেনদের এহেন মানসিকতা দেখে দুঃখ পেয়েছেন সুদীপা। অসুস্থ হওয়ার কথা লিখলেও সেটা সকলের চোখ এড়িয়ে গেল। কেউ তার খবর টুকুও নিল না। অভিমান করেই তাই তিনি লেখেন, ‘এত লোকে এত কিছু লিখলেন-কেউ কিন্তু একবারও জিজ্ঞেস করলেন না সুদীপা কি হয়েছে তোমার? অসুস্থ কেন? এর থেকে বোঝা গেল আমি মরে গেলেও আপনারা আমার চিতায় ফুলের মালা গুনবেন। তাতে খুঁত ধরবেন। বানান ভুল ধরবেন। আমাকে দেখবেন না, তাই তো? কি নিষ্ঠুর।’

Sudipa Chatterjee comment

এই প্রসঙ্গে সংবাদ মাধ্যমের কাছেও মনের মনের কষ্ট প্রকাশ করেছেন তিনি। এই প্রথমবার নয়, এর আগেও বহুবার নেট মাধ্যমে অপমানিত ও অপদস্ত হতে হয়েছিল তাকে। এসব দেখলে রাগ হয় না বরং মন খারাপ লাগে। এরপর যীশু খ্রীষ্টের বাণীর উল্লেখ করে সুদীপা জানান, ‘ভগবান এরা জানে না এরা কী করছে। এদের ক্ষমা কোরো’।

Related Articles

Back to top button