বিনোদন

তুমি এটা করতে পারলে! আক্ষেপের সুরে স্বামীকে প্রশ্ন করলেন রান্নাঘরের সুদীপা

জি বাংলার রান্নাঘর পোগ্রামের চেনা মুখ সুদীপা চ্যাটার্জী (sudipa chatterjee)। প্রতিদিন দুপুরে মুখে একরাশ হাসি নিয়ে হাজির হন অভিনেত্রী। বাঙালির ভুরিভোজের নতুন নতুন সমস্ত আয়োজনের রেসিপি নিয়ে। রান্নাঘরের সুবাদেই অভিনেত্রীর জনপ্রিয়তাও রয়েছে বেশ। তাছাড়া নিজের সাজগোজের জন্য বেশ জনপ্রিয় অভিনেত্রী। তার সুন্দর চুলের ফ্যান অনেকেই। সোশ্যাল মিডিয়াতে নিজের সাজের ছবি থেকে শুরু করে চুলের যত্ন কিভাবে নেন সেই সব কিছু নিয়েই আলোচনা করেন সুদিপা।

অভিনেত্রীর একটি ছোট্ট ছেলে রয়েছে। স্বামী আর ছেলেকে নিয়ে দিব্যি সংসার করছেন সুদীপা। সম্প্রতি সুদীপার গলায় মন খারাপের সুর শোনা গেল। দীর্ঘ ১৭ বছর ধরে স্বামী অগ্নিদেব চ্যাটার্জিকে নিয়ে সংসার করছেন সুদীপা। বিয়ে থেকে শুরু করে বিবাহবার্ষিকী, জামাইষষ্ঠী জীবনের নানান স্পেশাল মুহূর্তগুলো শেয়ার করে নেন সোশ্যাল মিডিয়াতে। তেমনই একটি পুরোনো ছবি শেয়ার করে আক্ষেপ করেছেন সুদিপা।

জি বাংলা রান্নাঘর Sudipa Chatterjee সুদিপা চ্যাটার্জী

নিজের একটি পুরোনো ছবি শেয়ার করেছেন সুদীপা। ছবি শেয়ার করে তিনি লিখেছেন, ‘তুমি এটা কি করে করতে পারলে অগ্নিদেব?দুপুরের লাঞ্চের জন্য কে কালো কাপড় পড়ে?’ এদিকে যে ছবিটি অভিনেত্রী শেয়ার করেছেন সেটা থেকে তাকে রীতিমত চেনা দায়। তার কারণ আগের সুদীপা আর এখনের সুদীপার মধ্যে ব্যাপক ফারাক রয়েছে। কয়েক দশক আগের তোলা ছবির থেকে অনেকটাই বদলে গিয়েছেন তিনি।

আগেই বলেছি যে, সুদীপার শাড়ি ও সাথে ম্যাচিং কানের দুল সাথে গয়নার প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয় সকলেই। সেখানে একসময় কালো শাড়ি পরে দুপুরের খাবার খেতে বসেছিলেন অভিনেত্রী। যেটা তার মতে একেবারেই বেমানান। তাই এতদিন পর ছবিটি দেখে মনের আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী। সুদীপার এই পোস্ট ইতিমধ্যেই অনুগামীদের চোখে পরে রীতিমত ভাইরাল হয়ে পড়েছে।

প্রসঙ্গত, সুদীপার বিয়ের কাহিনীটা কিন্তু বেশ মজার। পোষ্যদের প্রতি একটা আলাদা টান রয়েছে সুদীপার। এই পোষ্যের সূত্রেই স্বামীর বাড়িতে আসা যাওয়া শুরু। এরপর ধীরে ধীরে বন্ধুত্ব থেকে প্রেম আর তারপর শুভ পরিণয়। তবে একবার নয় দুবার বিয়ে করেছেন অভিনেত্রী, তবে পাত্র কিন্তু একজনই। প্রথম বিয়ে হয়েছিল ২০১০ সালে তবে সেই সময় রেজিস্ট্রির প্রচলন ছিল। না তাই সাত বছর পরে মতে বিয়ে করেছিলেন তারা।

Related Articles

Back to top button