গসিপবিনোদনসিনেমা

দুই মেয়েকে সম্পত্তির ভাগ দিলেও, স্ত্রী ডিম্পল কাপাডিয়াকে এক পয়সাও দেননি রাজেশ খান্না

রাজেশ খান্নাই (Rajesh Khanna) ছিলেন ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতের প্রথম সুপারস্টার। ১৯৬৯ থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত দর্শকদের ধারাবাহিকভাবে একের পর এক ১৫টি সুপারহিট সিনেমা উপহার দিয়ে সুপারস্টার (Superstar) তকমা জিতে নিয়েছিলেন এই কিংবদন্তি অভিনেতা। তাঁকে ঘিরে ভক্তদের উৎসাহের অন্ত ছিল না। সুপারস্টার ‘কাকা’ কে ঘিরে ভক্তদের পাগলামির অসংখ্য উদাহরণ আছে। হিন্দি সিনেমায় অভিনয় করে একসময় বিপুল নাম, যশ খ্যাতি অর্জন করেছিলেন তিনি।

rajesh khanna রাজেশ খান্না

মৃত্যুর এত বছর পরেও অসামান্য অভিনয় দক্ষতার জেরে হিন্দি সিনেমা জগতে আজও তাঁর উজ্জ্বল উপস্থিতি। তাঁর মনোমুগ্ধকর হাসি আজও দর্শক হৃদয়ে বিরাজমান। তাই রাজেশ খান্না আজ মাদের মাঝে না থাকলেও, ভক্তদের হৃদয়ে বেঁচে থাকবেন চিরকাল।১৯৬৬ সালে ‘আখরি খত’ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে অভিনয় জগতে পা রেখেছিলেন রাজেশ খান্না। এরপর রাতারাতি যতীন খান্না থেকে হয়ে ওঠেন সকলের প্রিয় রোমান্টিক হিরো রাজেশ খান্না। তবে এই বলিউড সুপারস্টারের অভিনয় জীবনের মতোই বর্ণময় তাঁর ব্যক্তিগত জীবনও। সেসময় একের পর এক তাঁর নাম জড়িয়েছে তৎকালীন একাধিক অভিনেত্রীর সাথে।

অঞ্জু মহেন্দ্রুর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর রাজেশ খান্নার পরিচয় হয় ইন্ডাস্ট্রিতে নবাগতা ডিম্পল কাপাডিয়ার (Dimple Kapadia) সাথে। ডিম্পল যখন তার প্রথম ছবি ‘ববি’ করছিলেন তখন তাঁর বয়স ছিল মাত্র ১৬ বছর। সেই সিনেমার শুটিং চলাকালীন অল্প বয়সেই ডিম্পল রাজেশ খান্নাকে বিয়ে করেছিলেন। তবে ডিম্পলের সাথেও সম্পর্ক টেকেনি রাজেশ খান্নার। বিবাহিত জীবনে তারা সুখী ছিলেন না। ১১ বছর তাঁদের দাম্পত্য জীবন স্থায়ী হয়েছিল।

Rajesh Khanna Affairs

পরবর্তীতে তারা একে অপরের থেকে আলাদা হয়ে যান এবং নিজেদের মতো জীবনযাপন শুরু করেন।তবে তাঁদের দুই মেয়ে টুইঙ্কেল খান্না (Twinkle Khanna) এবং রিংকি খান্না (Rinki Khanna) অন্ত প্রাণ ছিল রাজেশ খান্নার। এই কারণেই যে জীবনের শেষ দিনগুলিতে তিনি তার সমস্ত স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তি দুই মেয়ের নামে সমান ভাগে ভাগ করে দিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু অভিনেতা তার স্ত্রী ডিম্পল কাপাডিয়াকে এক পয়সাও দিতে রাজি ছিলেন না।

জানা যায় সুপারস্টার রাজেশ খান্না প্রায় হাজার কোটি টাকার স্থাবর -অস্থাবর সম্পত্তির মালিক ছিলেন। মৃত্যুর আগে নিজের উইল তৈরি করে গিয়েছিলেন। সেই উইল তার পরিবারের সকল সদস্যসহ জামাই অক্ষয় কুমার, স্ত্রী ডিম্পল কাপাডিয়া এবং কয়েকজন বন্ধুর উপস্থিতিতে পাঠ করা হয়। রাজেশ খান্নার ওই উইল অনুসারে, অভিনেতা তার সমস্ত সম্পত্তি দুই কন্যা টুইঙ্কল খান্না এবং রিংকি খান্নাকে সমাধ ভাগে ভাগ করে দিয়েছিলেন। তবে স্ত্রী ডিম্পল কাপাডিয়া এবং লিভ-ইন পার্টনার অনিতা আডবাণীকে সম্পর্কের সিকি ভাগও দেননি তিনি।

Related Articles

Back to top button