গসিপবিনোদনসিনেমা

রাজ কুন্দ্রার পর্ণ কান্ডে নতুন মোড়! উদ্ধার গোপন আলমারি, সাক্ষী দিতেও রাজি রাজের ৪ কর্মচারী

এখন গোটা দেশে ‘টক অফ দ্য টাউন’ (Talk Of The Town) হয়ে দাঁড়িয়েছে পর্ণোগ্রাফিক কন্টেন্ট বানানোর অভিযোগে রাজ কুন্দ্রার (Raj Kundra) গ্রেপ্তারির ঘটনা। ইতিমধ্যেই হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটসহ ,অন্যান্য একাধিক তথ্যপ্রমাণ হাতে এসেছে মুম্বাই পুলিশের। সেই তথ্য প্রমাণের ওপর ভিত্তি করেই পুলিশের দাবী পর্নোগ্রাফি ভিডিয়ো তৈরির কাজে মূল ষড়যন্ত্রকারী হলেন রাজ কুন্দ্রা।

জানা গেছেগত ২৩ জুলাই রাজ কুন্দ্রাকে এসপ্ল্যানেড আদালতে পেশ করা হয়েছিল। কিন্তু পরবর্তীতে তদন্তের প্রয়োজনে ২৭ জুলাই পর্যন্ত তাঁর পুলিশ হেফাজতের মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়। অন্য দিকে পর্নকাণ্ডে রাজ কুন্দ্রার গ্রেফতারি অবৈধ, বলে বম্বে হাইকোর্টে দাবি জানিয়েছেন তাঁর আইনজীবীরা। পুলিশের অভিযোগ, জিজ্ঞাসাবাদের সময় কোনও রকম সহযোগিতা করছেন না রাজ।

এই ঘটনায় গতকাল বিকেলে রাজ কুন্দ্রাকে নিয়ে শিল্পা শেট্টির জুহুর বাড়িতে তল্লাশি চালায় পুলিশ। সেই সময় নাকি স্বামী রাজের সঙ্গে কথাকাটাকাটির পর ভেঙে পড়েন শিল্পা। তবে জেরার মুখে পড়েও স্বামীর পাশেই দাঁড়িয়েছেন শিল্পা। রাজ কুন্দ্রা নির্দোষ বলে দাবি করেছেন, তিনি। তবে পর্ন কান্ডে তিনি অভিযুক্ত করেছেন প্রদীপ বক্সী (Pradip Baxi) নামের এক ব্যক্তিকে, যিনি সম্পর্কে রাজ কুন্দ্রার জামাই বাবু হন বলে খবর।

এছাড়া এদিনের জেরায় শিল্পা জানান রাজের কোম্পানী হটশটের বিষয়ে তিনি কিছু জানতেন না। এই কাজে তাঁর সঙ্গী ছিলেন প্রদীপ বক্সী বলে দাবি করেন শিল্পা। সেই সাথে শিল্পার দাবী তাঁর স্বামী নির্দোষ। পুলিশকে দেওয়া বয়ানে তিনি বলেন, ‘আমার স্বামী ইরোটিকা বানাতেন, পর্নোগ্রাফি নয়’।

জানা গেছে রাজের অন্ধেরির ভায়ান অ্যান্ড জে এল স্ট্রিম অফিসে তল্লাশি চালিয়ে গোপন আলমারির হদিশ পেয়েছে পুলিশ। তবে এই আলমারি থেকে কি তথ্য পাওয়া গেছে তা এখনই জানাতে নারজ তদন্তকারীরা। এসবের মধ্যেই এক চাঞ্চল্যকর মোড় নিয়েছে এই তদন্ত। ইতিমধ্যেই রাজ কুন্দ্রার ৪ কর্মচারী তাঁর বিরুদ্ধে সাক্ষীদিত রাজি হয়েছেন। সূত্রের খবর রাজের বাণিজ্যিক এবং আর্থিক বিষয়ে এই ৪ কর্মচারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পাশাপাশি ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে তাঁদের বয়ান রেকর্ডও করা হবে।

Related Articles

Back to top button