বিনোদনভিডিওসিরিয়াল

বরের ওপর রাগ করে কার সাথে হানিমুনে যাবেন পর্দার ফুলঝুরি? হাটে হাঁড়ি ভাঙলেন রচনা

বাংলা বিনোদন জগতের জনপ্রিয় অভিনেত্রী হলেন মানালি দে (Manali Dey)। কিছুদিন আগেই স্টার জলসার পর্দায় শেষ হয়েছে মানালি অভিনীত জনপ্রিয় মেগা সিরিয়াল ‘ধূলোকণা’ (Dhulokona)। এই ধারাবাহিকে ফুলঝুরি (Phuljhuri) চরিত্রে অভিনয় করে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন মানালি।

এই ধারাবাহিকের নায়ক নায়িকা লালন-ফুলঝুরির কেমিস্ট্রি অল্পদিনেই দারুণ জনপ্রিয়তা পেয়েছিল দর্শকমহলে। এই কারণে এই জুটির অনুরাগীদের একটা বড় অংশই তাদের নাম মিলিয়ে ভালোবেসে নাম রেখেছিল ‘লালঝুরি’। আবার কেউ কেউ ডাকত ‘লালফুল’ বলে। সিরিয়াল শেষ হওয়ার পর এখনও পর্দার ফুলঝুড়িকে বেশ মিস করেন অনুরাগীরা।

Phuljhuri actress Manali Dey will comeback soon in a new serial

এরইমধ্যে জানা গেল আরও একবার পর্দায় ফিরছেন ফুলঝুরি অভিনেত্রী মানালি। না, তবে কোনো সিরিয়াল নয় জানা যাচ্ছে খুব তাড়াতাড়ি জি বাংলার জনপ্রিয় গেম শো দিদি নাম্বার ওয়ানের মঞ্চে আসবেন অভিনেত্রী।  সেখানেই এদিন এই অভিনেত্রীর হাঁড়ির খবর বার করে আনেন সঞ্চালিকা রচনা বন্দোপাধ্যায়। প্রসঙ্গত দেখতে দেখতে ২ বছর হয়ে গেল বিয়ে হয়ে গিয়েছে মানালির।

Manali and Abhimanyu

তাই এদিন অভিনেত্রীর কাছে রচনার প্রশ্ন ছিল এই দু’বছরের সংসার জীবনে তিনি বাড়ির কি কি কাজ করেন? উত্তরে খুব সহজ ভাবেই পর্দার ফুলঝুরি বলেন ‘এটা কোথায় লেখা আছে বিয়ে করলে একটা মেয়েকেই সব দায়িত্ব নিতে হবে’? শুধু তাই নয় মানালি এও জানান এখনও সংসারের দায়িত্ব রয়েছে তার শশুর শাশুড়ির ওপরেই।

এমনকি এদিন অভিনেত্রী জানান এখনও তিনি প্রতিদিন বেলা ১১-টায় ঘুম থেকে ওঠেন। আর টুকটাক কাজ করে ফাঁকি দিয়ে জীবনটা কাটিয়ে দিচ্ছেন। আর এরপরেই মানালির কাছে আগামীদিনে তাদের ফ্যামিলি প্লানিং সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে মানালি জানান এই ২ বছরে এখনও হানিমুনে যেতে পারেননি তিনি। তাই এ সম্পর্কে তিনি জানেন না।

বাংলা সিরিয়াল,Bengali Serial,মানালি দে,Manali Dey,ধূলোকণা,Dhulokona,ফুলঝুরি,Phuljhuri,দিদি নাম্বার ১,Didi No 1,রচনা বন্দোপাধ্যায়,Rachna Banerjee,ট্রোল,Troll,সোশ্যাল মিডিয়া,Social Media

সোশ্যাল মিডিয়ায় দিদি নাম্বার ওয়ানের এই ভিডিও দেখে শুরু হয়েছে ব্যাপক হাসাহাসি। বিয়ের পরেও মানালির এমন জীবনের কাহিনী শুনে কেউ কেউ জানতে চেয়েছেন এমন শশুরবাড়ি কোথায় পাওয়া যায় আবার কেউ তার কথা শুনে তাকে ‘ন্যাকা’ বলে কটাক্ষ করেছেন। আবার বেলা ১১-টায় ঘুম থেকে ওঠার কথা শুনে কারও কটাক্ষ ‘তুমি ঘুমাও আরও বেশি করে, ফালতু মেয়ে, বলতে লজ্জা করে না, ১১টাই ঘুম থেকে উঠি’।

Related Articles

Back to top button