গসিপবিনোদন

প্রসেনজিৎ’এর সামনে কান্নায় ভেঙে পড়লেন রচনা, পাশ থেকে চোখের জল মুছে দিলেন বুম্বাদা

সিনেমায় প্রসেনজিৎ-রচনা জুটি মানেই সেটি সুপারহিট। একসঙ্গে বহু হিট সিনেমায় কাজ করেছেন এই দুই তারকা। সম্প্রতি নিজের প্রাক্তন অনস্ক্রিন নায়কের সামনেই কান্নায় ভেঙে পড়েন বাংলার ‘দিদি নম্বর ওয়ান’। যা দেখে রচনার (Rachna Banerjee) কাছে এসে তাঁর কান্না থামান বুম্বাদা (Prosenjit Chatterjee)। কিন্তু কেন হঠাৎ রচনা কান্নায় ভেঙে পড়লেন?

মঙ্গলবার ‘দিদি নম্বর ওয়ান’এর (Didi No. 1) এক বিশেষ পর্ব সম্প্রচারিত হয়েছে। সেখানে মেয়েদের সঙ্গে খেলায় অংশ নিয়েছিলেন বাবারা। সেই পর্বেই বাবা-মেয়ের সম্পর্কের ওপর গড়ে ওঠা নিজের আসন্ন ছবি ‘আয় খুকু আয়’এর প্রচারে আসেন প্রসেনজিৎ। বাবাদের নিয়ে হওয়া এই বিশেষ পর্বে বুম্বাদা শো’য়ের সঞ্চালিকা রচনাকে তাঁর বাবার সম্বন্ধে কিছু কথা বলার অনুরোধ করেন। আর তাতেই যেন রচনার বাবা হারানোর যন্ত্রণাটা আরও তীব্র হয়ে ওঠে।

যে রচনা শো’য়ের প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীকে এগিয়ে যাওয়ার সাহস যোগান, তিনিই ঝরঝর করে কাঁদতে শুরু করেন। যা দেখে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন সকলে। দীর্ঘদিনের সহকর্মী এবং বন্ধুকে এই অবস্থায় দেখে সঙ্গে সঙ্গে এগিয়ে যান ‘ইন্ডাস্ট্রি’ প্রসেনজিৎ (Prosenjit Chatterjee)। রচনার কাঁধে হাত রেখে তাঁকে সান্ত্বনা দেন। রচনার চোখের জলও মুছিয়ে দেন তিনি।

বন্ধুকে পাশে পেয়ে কিছুটা সামলে ওঠেন বাংলার নম্বর ওয়ান দিদি। বলে ওঠেন, ‘আমার বাবাই আমার সব ছিল। বাবার স্মৃতিচারণা করে বলতে থাকেন, তিনি যখন দীর্ঘ দিন হায়দ্রাবাদে কাজ করছেন, সেই সময় নিজের চাকরি ছেড়ে মেয়ের সঙ্গে সেই রাজ্যে চলে যান রচনার পিতা রবীন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় (Rabindranath Banerjee)। মেয়ের সবকিছুর সঙ্গেই জড়িয়ে ছিলেন তিনি। ঠিক এই কারণেই বেশ কয়েকমাস হয়ে গেলেও এখনও বাবাকে হারানোর যন্ত্রণাটা ভুলতে পারেননি রচনা (Rachna Banerjee)।

যে মানুষটাকে জীবনের প্রত্যেকটা পদক্ষেপে পেয়েছেন, সে আর নেই, এটা যেন কিছুতেই তাঁর মন মানতে পারছে না। গত বছর নভেম্বর মাসে পিতৃহারা হয়েছেন এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী। দীর্ঘদিন বার্ধক্যজনিত সমস্যায় ভুগতে থাকার পর বাড়িতেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন রচনার পিতা।

Related Articles

Back to top button