খবরগসিপবিনোদনসিনেমা

অনলাইনে শাড়ি বিক্রি করে, নেটিজেনদের ট্রোলের মুখে রচনা! এবার সপাটে জবাব দিলেন অভিনেত্রী

করোনা মহামারিকালে বহু লোকের কাজ গিয়েছে, অনেকেই ছোটোখাটো ব্যবসা শুরু করেছেন টাকা উপার্জন করতে। এবার আর পাঁচটা শাড়ি গয়না বিক্রি ব্যবসায়ীর মত অনলাইনে নিজের ব্রানডের শাড়ি বিক্রি শুরু করেছেন অভিনেত্রী রচনা ব্যানার্জী (Rachana Banerjee)। আর তাতেই একপ্রকার বিরূপ প্রতিক্রিয়া মিলেছে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে। নেটিজেনদের একাংশের থেকে কুৎসিত ট্রোলের (Social Media Troll) সম্মুখীন হয়েছেন অভিনেত্রী। প্রথমদিকে কিছু না বললেও এবার মুখ খুললেন অভিনেত্রী।

একসময় টলিউডের জনপ্রিয়  অভিনেত্রীদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন রচনা ব্যানার্জী। তবে বর্তমানে সিনেমার থেকে নিজেকে আলাদাই রেখেছেন রচনা। জি বাংলার পর্দায় ‘দিদি নং  ১ (Didi No 1)’ এ দেখা মেলে রচনার। তবে সিনেমার অভিনয় থেকে আলাদা হলেও জনপ্রিয়তায় কিছু আঁচ পড়েনি ছিটে ফোঁটাও। একই রকম সুন্দরী আর জনপ্রিয় রয়েছেন এভারগ্রীন রচনা।

তবে দিদি নং ১ এর সঞ্চালনা ছাড়াও  নিজস্ব ব্র্যান্ড ‘রচনা’স ক্রিয়েশন (Rachana’s Creation)’ নামের বুটিক শুরু করেছেন অভিনেত্রী। অনলাইনে শাড়ি বিক্রি দিয়েই শুরু হয়েছে পথচলা। কিন্তু অভিনেত্রীকে শাড়ি বিক্রি করতে ডেকে কিছু নেটিজেন তীব্র কটাক্ষ করেছেন তাকে। কারোর মতে ছোট ব্যবসায়ীদের রোজগার কেড়ে নিচ্ছেন তিনি। তো কেউ বলছেন কম দামের শাড়ি বেশি দামে বিক্রি করা হচ্ছে। এমন নানা খারাপ মন্তব্য ধেয়ে এসেছে লাইভ পোগ্রামকে ঘিরে।

Rachana Banerjee Trolled for selling Saree Online at higher cost

নেটিজেনদের এহেন কটাক্ষের এবার জবাব দিলেন অভিনেত্রী। রচনা ব্যানার্জী আবারো একটি লাইভ ভিডিও করেন। সেখানে তিনি জানান, তাঁর শাড়ির ব্যবসা শুরু হওয়াতে অনেকেই ক্ষুণ্ণ  হয়েছেন, সেটা তিনি বুঝতে পারছেন। কিন্তু প্রশ্নটা হল শাড়ির ব্যবসা করা টা কি খারাপ? গোটা দেশে হাজারো লক্ষ এমন মহিলারা রয়েছেন যারা শাড়ি বিক্রি করেন অনলাইনে। সকলেই নিজের মত করে ব্যবসা শুরু করতে পারে। কারোর ক্ষতি করে নয় বরং চাইলেই সবাই পারবে এমনটা করতে।

এদিন ট্রোলের জবাব দিয়ে অভিনেত্রীর জানান, ‘রচনা পারলে আমরা কেন পারব না?’ অর্থাৎ খারাপভাবে না নিয়ে অনুপ্রেরণা হিসাবে নিয়েই অনেক শুরু করতে পারেন তাদের নিজেদের শাড়ির ব্যবসা। প্রসঙ্গত, দিদি নং ১ এর মঞ্চে অনেকের থেকেই শাড়ি বিক্রি করে সংসার চালানো ও সন্তানদের বড় করার কাহিনী শুনেছেন রচনা। সেখান থেকেই তাঁর এই বুটিকের চিন্তাভাবনা।

Related Articles

Back to top button