গসিপবিনোদনসিনেমাসিরিয়াল

হাজারো কাজের মাঝেও ছেলের আবদার পূরণ, প্রণিলের প্রিয় খাবার রাঁধতে রেসিপির খাতা সাথে রাখেন রচনা

টলিউডের অভিনেত্রী রচনা ব্যানার্জী (Rachana Banerjee) দিদি নং ১ (Didi No 1) এর জেরে আজ প্রতিটা বাঙালির কাছেই পরিচিত। একসময় একের পর এক দুর্দান্ত হিট ছবি দিয়ে মানুষের মন জয় করেছিলেন। এরপর এক দশকের বেশি সময় ধরে প্রতিদিন বিকেলে দিদি নং ১ এর মঞ্চে দেখা মেলে অভিনেত্রীর। জীবনের অনেকটা সময়ই দিদি নং ১ এর মঞ্চে কাটিয়েছেন অভিনেত্রী, আর মঞ্চে শেয়ার করেছেন নিজের জীবনের একাধিক ঘটনাও।

কাজ আর শুটিং নিয়েই সারাদিন ব্যস্ত থাকেন অভিনেত্রী। তবে সমস্ত কাজের মাঝেও তিনি একজন বলেও মা। রচনা ব্যানার্জীর ছেলের নাম প্রণিল বাসু (Pranil Basu)। অভিনেত্রী নিজে খুব একটা খেতে ভালোবাসেন না বা ফুডি গোছের নয়। তিনি নাকি তিন দিন না খেয়েও দিব্যি থাকতে পারেন। কিন্তু ছেলে কি আর সে সব পারে! একটু অধ্রু বার্গার বা পিজ্জা তো চাই।

রচনা ব্যানার্জীর ছেলে প্রণিল কিন্তু একেবারে মায়ের উল্টোটা। খেতে দারুন ভালোবাসে প্রণিল। তবে আর পাঁচটা স্বাভাবিক ছেলের মতন ভাত ডাল তরকারি কিন্তু পছন্দের খাবারের তালিকায় একেবারেই নেই। পছন্দের খাবার বলতে পাস্তা বা কন্টিনেন্টাল চাউমিন। একেই খাবারের প্রতি সেভাবে আগ্রহ নেই তারপর কাজের চাপ তাই অনেক সময় ছেলেকে প্রিয় খাবার অনলাইনে অর্ডার করে খাওয়ান অভিনেত্রী।

Rachana Banerjee Son Pronil Basu

যদিও তাতে সবসময় কাজ হয়না। আসলে মায়ের  হাতের রান্নার স্বাদই আলাদা হয়। তাই মায়ের হাতে বানানো পাস্তা বা চাউমিনের জন্য বায়না লেগেই থাকে প্রণিলের। আর ছেলের আবদার পূরণ করতেই রান্না করেন অভিনেত্রী। তবে রেসিপি খুব একটা মুখস্ত নয় তাই ছেলের পছন্দের কিছু রেসিপি একটা খাতায় লিখে রেখেছেন তিনি। যাতে আবদার করলে বা সময় পেলে ছেলেকে নিজের হাতে রান্না করে খাওয়াতে পারেন।

প্রসঙ্গত,  রচনা বানেরযে ২০০৭ সালে প্রবাল বাসুর সাথে সাত পাকে বাধা পড়েন। তার সাথে থাকা কালীনই প্রনীলের জন্ম হয়। এরপর একসময় দুজনে আলাদা হয়ে যান। তবে আলাদা হয়ে গেলেও ছেলের দৌলতে অভিনেত্রী ও তার প্রাক্তন বরের দেখা হয় মাঝে মধ্যে। কিছুদিন আগেই প্রয়াত হয়েছেন অভিনেত্রীর বাবা। বাবাকে হারিয়ে কিছুদিন দিদি নং ১ থেকে বিরতি নিয়েছিলেন রচনা। তবে ইতিমধ্যেই আবারো সঞ্চালনার দায়িত্ব সামলাতে ফিরেছেন তিনি

Related Articles

Back to top button