গসিপবিনোদনসিনেমা

কোটি টাকা নিয়েও দায় সারা কাজ করেন অক্ষয় কুমার! আর মাধবনের মন্তব্যে খেপে লাল ফ্লপ ‘পৃথ্বীরাজ’

সম্প্রতি বক্স অফিসে মুক্তি পেয়েছে আর মাধবন পরিচালিত ‘রকেট্রিঃ দ্য নাম্বি এফেক্ট’(Rocketry : The Nambi Effect) । ইসরোর বিজ্ঞানী নাম্বি নারায়ণনের ওপর তৈরি করা হয়েছে এই ছবিটি। এই ছবির প্রচারে গিয়েই পরিচালক-অভিনেতা ম্যাডি (R Madhavan)  চলচ্চিত্র সম্বন্ধিত বহু বিষয়ে কথা বলেছেন। তবে এর মধ্যে একটি কথা বলিপাড়ার ‘খিলাড়ি’ অক্ষয় কুমারের (Akshay Kumar) প্রচণ্ড গায়ে লেগেছে। যা শোনার পর আর চুপ থাকতে পারেননি তিনি।

সম্প্রতি মাধবন কাজের প্রতি দায়বদ্ধতা নেই এমন অভিনেতাদের বিষয়ে মুখ খুলেছিলেন। আর তাতেই চটে গিয়েছেন অক্ষয়। সম্প্রতি ‘খিলাড়ি’ অভিনীত ‘সম্রাট পৃথ্বীরাজ’ বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়েছে। এরপর অনেকেই তাঁর দায়বদ্ধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। এবার মাধবনের কথায় তাই আর মুখ বন্ধ রাখতে পারেননি অক্ষয়।

R Madhavan comments about Akshay Kumar Commitments

সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওয় দেখা গিয়েছে, মাধবন দুই ধরণের অভিনেতাদের বিষয়ে কথা বলছেন। প্রথম ধরণ, যারা ৪০-৪৫ দিনের মধ্যে একটি ছবি শেষ করেন এবং দ্বিতীয় ধরণ, যারা একটি প্রোজেক্টের পিছনে এক বছর সময় দিতেও রাজি থাকেন। অক্ষয় নিজে যেহেতু কম সময়ের মধ্যে ছবি শেষ করেন, তাই হয়তো ম্যাডির কথা কিছুটা গায়ে লেগেছে তাঁর।

মাধবন অভিনেতাদের দায়বদ্ধতা প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘পুষ্পা ছবিতে অল্লু অর্জুন নিজের চরিত্র পুরো ছবিতে ধরে রেখেছিল। ওঁকে যেমন সুন্দর দেখতে, তেমনই ভালো নাচতেও পারে। কিন্তু ওই ছবিতে ও নিজের চরিত্রকে ধরে রেখে নাচও করেছে এবং রোম্যান্সও করেছে। তাই আমার মনে হয় একটি ছবি তৈরি করতে যখন ৩-৪ মাসে নয় বরং ১ বছর সময় লাগে তখন একজন অভিনেতার দায়বদ্ধতা খুব জরুরী হয়ে যায়’।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Rahul kapoor (@rahulkapoor906)

সম্প্রতি অক্ষয়কে তাঁর আসন্ন ছবি ‘রক্ষাবন্ধন’এর একটি গান লঞ্চের অনুষ্ঠানে ম্যাডির এই বক্তব্য প্রসঙ্গে জিজ্ঞেস করা হয়। যা শুনে তিনি বলেন, ‘আমার ছবি শেষ হয়ে যায় তো আমি কী করব? এবার একজন পরিচালক আসে এবং আমায় বলে, আপনার কাজ হয়ে গিয়েছে। তো এরপর কি আমি ওনার সঙ্গে ঝগড়া করব’?

Akshay Kumar reply to R Madhavan on Non Commitment

এরপর ছবির পরিচালক অক্ষয়ের দায়বদ্ধতা নিয়ে মুখ খোলেন। তিনি বলেন, ‘উনি (অক্ষয়) নিজে বলে বলে এই ধারণা তৈরি করেছেন যে আমি ৪০-৪৫ দিনে ছবি শেষ করি। কিন্তু ওনার হিসেবে গণ্ডগোল আছে। এই কথা বলে উনি সকলকে বোকা বানিয়েছেন। ৪০-৪৫ দিনে উনি কিন্তু সকালবেলা আসেন এবং কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত থাকেন। উনি নিজেই হয়তো জানেন না, লোকে ওনাকে ৪০-৪৫ দিন বলে নিয়ে যায় কিন্তু সময়ের হিসেবে বলা হলে সেটা ৮০-৯০ দিন হয়’।

Related Articles

Back to top button