খবরবিনোদনসিনেমা

সাফল্য সহ্য হয়নি, বরবাদ করেছেন অভিষেকের কেরিয়ার! অভিযোগের জবাব দিয়ে বললেন প্রসেনজিৎ

টলিউডের অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায় (Abhishek Chatterjee) প্রয়াত হয়েছেন একমাস পেরিয়ে গিয়েছে। কিন্তু অভিনেতার চলে যাওয়ায় যে শূন্যতা তৈরী হয়েছে সেটা আজ অপূরণীয়ই রয়ে গিয়েছে। তাঁর চলে যাওয়া যেমন সকলকে বিস্মিত ও দুঃখী করে দিয়েছিল তেমনি তুলে দিয়েছিল বেশ কিছু প্রশ্ন। কেন সফল অভিনেতা হয়েও টলিউডে দেখা মিলত না তাঁর? প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জী (Prosenjit Chatterjee) নাকি বরবাদ করে দিয়েছিলেন অভিষেকের কেরিয়ার? এমন অনেক প্রশ্নে উত্তাল হয়েছিল নেটপাড়া।

বেঁচে থাকাকালীন অভিনেতা নিয়েই টলিউডের ‘ইন্ডাস্ট্রি’ এর দিকে অভিযোগের আঙ্গুল তুলে ধরেছিলেন। তাঁর অভিযোগ ছিল প্রসেনজিৎ-ঋতুপর্ণার জন্য ২০ টিরও বেশি ছবি থেকে বাদ পড়েছিলেন অভিষেক চট্টোপাধ্যায়। অভিনেতার মৃত্যুর পর তাঁর স্ত্রী সংযুক্তার মুখেও এই একই কথা শোনা গিয়েছিল। তাই নেটপাড়ায় তীব্র কটাক্ষের মুখে পড়তে হয়েছিল টলিউডের ‘ইন্ডাস্ট্রি’ তথা বুম্বা দাকে।

প্রসেনজিৎ-ঋতুপর্ণা দুজনের বিরুদ্ধে ওঠা এই গুরুতর অভিযোগ নিয়ে মুখ খুলেছিলেন অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। তবে প্রসেনজিৎ কিন্তু কোনো কথাই বলেননি। অভিষেকের মৃত্যুর পর যেমন চুপ ছিলেন অভিযোগ, কটাক্ষ ধেয়ে আসার পরেও নির্বাক ছিলেন। সম্প্রতি এই প্রসঙ্গে আনন্দবাজারের সাথে সাক্ষাৎকারে বেশ কিছু কথা শেয়ার করে নিয়েছেন বুম্বা দা।

সাক্ষাৎকারে প্রসেনজিৎ জানান, তিনি আর অভিষেক দুজনেই ভালো বন্ধু ছিলেন। একসাথে একাধিক কাজও করেছেন। কিন্তু এভাবে যে অভিষেক চলে যাবে সেটা ভাবতেও পারেননি প্রসেনজিৎ। কথা বলতে গিয়ে আরও এক অভিনেতা তাপস পালের কথাও বলেন তিনি। সেই সময়েও অনেকেই কটাক্ষ করেছিল তাকে।

তাপস পাল মারা যাওয়ার সময় অনেকেই কটাক্ষ করেছিলেন প্রসেনজিৎকে। কথা উঠেছিল, অন্য অভিনেতাদের সাফল্য সহ্য করতে পারেন না প্রসেনজিৎ। সেই কারণেই ছবি কেড়ে নিয়ে তাদের এগিয়ে যাওয়ার পথের কাঁটা হয়ে যেতেন। তবে এসব অভিযোগ বহুবার উঠলেও কখনো মুখ খোলেননি প্রসেনজিৎ।

Prosenjit Chatterjee interview

এদিন সাক্ষাৎকারে এই নিয়েও প্রশ্ন করা হয় তাকে। বুম্বা দা প্রথমেই জানান, যে অভিষেকের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর অনেকেই তাঁর প্রতিক্রিয়া চাইলেও তিনি কিছুই বলেননি। কারণ তিনি নাকি কিছু বলতেই পারবেন না। আর রইল অভিযোগের কথা, অভিনেতার বিশ্বাস সত্যিটাতো আর লুকিয়ে রাখা যাবেন না। ঠিকই একদিন সত্যিটা সামনে আসবে তখনি সবটা বদলে যাবে হয়তো।

Related Articles

Back to top button