গসিপবিনোদন

প্রিয়াঙ্কার বোন হয়েও পাননি কোনোও সাহায্য! দক্ষিন ইন্ডাস্ট্রি ছেড়ে আজ পস্তাচ্ছেন মীরা চোপড়া

চোপড়া পরিবার তাকে কোনোকালেই স্বীকার করেননি। পরিণীতি চোপড়া সাফ জানিয়েছেন মীরা চোপড়ার (Meera Chopra) সঙ্গে তাঁর কোনো সম্পর্ক নেই। দিদি প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার (Priyanka Chopra) কাছেও কোনোদিন সাহায্য চাননি তিনি৷ অথচ বলিউডে জনপ্রিয়তা না পেলেও দক্ষিণ ছবির দুনিয়ায় এক নম্বর অভিনেত্রী ছিলেন তিনি। কেরিয়ার তখন তার মধ্য গগনে।

প্রিয়াঙ্কা পরিণীতি স্বীকার না করলেও মীরা কিন্তু গর্বের সাথেই বারংবার জানিয়ে এসেছেন তিনি প্রিয়াঙ্কার তুতো বোন। অভিনয় জগতে প্রায় ১৬ বছর কাটিয়ে ফেলেছেন মীরা। কিন্তু কেরিয়ার যখন তার মধ্য গগনে তখনই দক্ষিণ ছবির দুনিয়া ছেড়ে বলিউডে চলে আসার সিদ্ধান্ত নেন অভিনেত্রী। আর সেটিই তার জীবনের অন্যতম বড় ভুল।

এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী জানিয়েছিলেন, দক্ষিণ ইন্ডাস্ট্রিতে সফলতা পেলেও একই রকমের বাণিজ্যিক ছবিতে অভিনয় করতে করতে তাঁর একঘেয়ে লাগছিল। টাকা এলেও তৃপ্তি ছিলনা।

২০০৫ সালের তামিল ছবি ‘আয়ুইরে’ দিয়েই অভিনয়ে হাতেখড়ি তাঁর। তার আগে নিউইয়র্কে চাকরি করতেন মীরা। মিশিগান থেকে সম্পূর্ণ করেছিলেন নিজের মাস্টার্সও। দক্ষিণ ছবি করতে একঘেয়ে লাগায় প্রথমে কিছুদিন বিরতি নেবেন বলেই ভাবেন তিনি।

তারপর সিদ্ধান্ত নেন বলিউডে অভিনয় করবেন৷ জনপ্রিয়তা ও খ্যাতির মধ্যগগনে থাকতে থাকতেই দক্ষিণী ছবি থেকে সরে এসেছিলেন মীরা। কিন্তু তাঁর প্রত্যাশা পূর্ণ হয়নি। তাঁর প্রথম হিন্দি ছবি ‘গ্যাং অব গোস্টস’ মুক্তি পেয়েছিল ২০১৪ সালে। সতীশ কৌশিকের পরিচালনায় এই ছবি ছিল ‘ভূতের ভবিষ্যৎ’-এর রিমেক। এরপর তিনি যেকটিই বলিউড ছবি করেছেন তার কোনোটিই সুপারহিট হয়নি।

অর্জুন রামপালের বিপরীতে ‘নাস্তিক’ ছবিতে অভিনয় করছিলেন মীরা। কিন্তু বেশ কিছুটা অংশের শুটিংয়ের পরে বন্ধ হয়ে গিয়েছে ছবির কাজ। ২০১৮ সালে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল ছবিটির। কিন্তু এখনও এর মুক্তি আটকে আছে বিশ বাঁও জলে। সব মিলিয়ে দুই বোনের ধারেকাছেও যেতে পারেননি মিরা ,উপরুন্তু নিজের হাতেই শেষ করেছেন দক্ষিণ দুনিয়ার লোভনীয় কেরিয়ার।

Related Articles

Back to top button