মুখের আদলেও হুবুহু মিল,পছন্দও এক! প্রসেনজিৎ পুত্র তৃষাণজিৎ যেন টলিপাড়ার হবু নায়ক


টলিউডের (Tollywood) সুপার ষ্টার প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জীকে (Prasenjit Chatterjee) তো সকলেই চেনেন। বিগত কয়েক দশক ধরে বাঙালি দর্শকদের কয়েকশো হিট বাংলা ছবি উপহার দিয়েছেন অভিনেতা প্রসেনজিৎ। অভিনয়ের দক্ষতা দিয়েই সকলের মন জয় করেছেন তিনি। তার বাবা বিশ্বজিৎ চ্যাটার্জি পরিচালিত ছবি ‘ছোট্ট জিজ্ঞাসা’ ছবি দিয়েই অভিনয় জগতে তার পা রাখা।

এরপর নায়ক হিসেবে তিনি পর্দায় আত্মপ্রকাশ করেন ‘দুটি পাতা’ ছবি দিয়ে। ১৯৮৭ খ্রিষ্টাব্দে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি অমর সঙ্গী তার সবথেকে হিট ছবিগুলির মধ্যে অন্যতম।প্রসেনজিৎ ১৯৮৯ খ্রিষ্টাব্দে ডেভিড ধাওয়ানের পরিচালনায় আঁধিয়া এবং ১৯৯১ খ্রিষ্টাব্দে মেহুল কুমারের পরিচালনায় মিত মেরে মন কে বলে দুটি হিন্দি ছবিতে নায়ক হিসাবে অভিনয় করেন । কিন্তু কোনো ছবিই সফলতা লাভ করেনি ।

প্রসেনজিৎ ঋতুপর্ণ ঘোষ পরিচালিত উনিশে এপ্রিল, উত্সব, চোখের বালি, দোসর, খেলা এবং দ্য লাস্ট লিয়র ছবিতে অভিনয় করেছেন । এর মধ্যে দ্য লাস্ট লিয়র ছবিটি ছিল তার অভিনীত একমাত্র ইংরেজি ছবি এবং এই ছবিতে তিনি অমিতাভ বচ্চনের সাথে অভিনয় করেন।

প্রথম বিবাহ মোটেই সুখের হয়নি তার। তার প্রথম স্ত্রী জনপ্রিয় অভিনেত্রী দেবশ্রী রায়ের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর,তিনি অপর্ণা গুহঠাকুরতাকে বিয়ে করেন। সেই বিয়েও শেষমেশ টেকেনি। অবশেষে অভিনেত্রী অর্পিতা পালকে, বিয়ের পর তার সঙ্গেই সুখে সংসার করছেন অভিনেতা। তাদেরই ছেলে তৃষাণজিৎ ছোট করে বললে মিশুক।

সে আর বাবা মায়ের মতো অভিনয় জগত নয়, ইউরোপে পড়াশুনো করছে । করোনা কালীন পরিস্থিতির জন্যই দীর্ঘদিন বাড়িতে সে। দেখতেও অবিকল তাকে বাবারই মতোন। অনেকদিন পর ছেলেকে কাছে পেয়ে বেজায় খুশি। ছেলের সঙ্গে ছবি শেয়ার করে আবেগতাড়িতভাবে অভিনেতা লিখলেন, , ‘সময় বদলেছে, কিন্তু আমাদের রঙের পছন্দ একই রকম রয়েছে।’

একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে নীল টি-শার্ট ও সাদা জিন্সে ছোট্ট মিশুকের কাঁধে হাত দিয়ে রয়েছেন প্রসেনজিৎ। দ্বিতীয় ছবিতেও দুজনের পরনেই কালো টি-শার্ট৷ প্রসেনজিৎ বোঝাতে চাইলেন সেদিন থেকে আজ অনেকটা সময় পেরিয়ে গেলেও তাদের পছন্দের বদল ঘটেনি। এই ছবি তুমুল ভাইরাল হয়েছে নেটপাড়ায়।