গসিপবিনোদনসিরিয়াল

বেঁচে থাকতে দাম নেই মরে গেলেই কদর বাড়ে! পল্লবী দে’র মৃত্যুর পর বাড়ছে অনুগামীর সংখ্যা

ছোট থেকে অনেকেই বড়দের মুখে প্রবাদ বাক্য অনেকেই শুনেছি। ‘মানুষ বেঁচে থাকতে লোকে তাঁর কদর করে না, মরে গেলেই সন্মান করে আর কদর করে’ এই কথা সত্যিই বহুবার প্রমাণিত হয়েছে। এমন অনেক উদাহরণ দেখা যায় যেখানে একজন মারা যাওয়ার আগে তাকে নিয়ে কেউ সেভাবে চর্চা বা সন্মান না দেখালেও সে মারা যাওয়ার পর তাকে নিয়ে মাতামাতি ও তাঁর প্রতি সন্মান দেখানো শুরু হয়। বহু যুগের পুরোনো এই প্রবাদবাক্য় আজ সত্যিই হয় সমাজে।

সম্প্রতি টলিউডের অভিনেত্রী পল্লবী দে (Pallavi Dey) এর মৃত্যুর পর এমনটাই দেখা যাচ্ছে। আজ ১২ দিন পেরিয়ে গিয়েছে প্রয়াত হয়েছেন অভিনেত্রী। তবে শুধু তিনি নন একে একে কয়েক দিনের ব্যবধানে ৩ অভিনেত্রী আত্মহত্যা করেছেন। তাদের প্রত্যেকের চলে যাওয়াটাই প্রশ্ন তুলে দিয়েছে সাধারণ মানুষ থেকে ইন্ডাস্ট্রির অন্দরে। সোশ্যাল মিডিয়াতে বা টিভির পর্দায় হাসি খুশি থাকা এই অভিনেত্রীরা কেন এভাবে চলে যাচ্ছে?

মৃত্যুর পর তদন্ত শুরু হয়েছে, চলছে জিজ্ঞাসাবাদ। আর প্রায় প্রতিটা ক্ষেত্রেই একটা বিষয় খুব কমন সেটা হল কথা বলার লোকের অভাব বা বন্ধুবান্ধবি থেকে মা বাবা, পরিবারের সাথে কথা বলাটাও হয়তো কমে গিয়েছিল প্রত্যেকেরই। আজ চলে যাওয়ার পর তাদের পরিবারের লোকেরা ও বন্ধুরা আফসোস করছেন হয়তো ঠিকমত কথা বলে বুঝতে পারলে এমন অঘটনের হাত থেকে বাঁচানো যেত তাঁদের। কিন্তু সেটা আর সম্ভব নয়।

একাধিক সিরিয়ালে অভিনয় করেছিলেন পল্লবী দে। ‘আমি সিরাজের বেগম’ সিরিয়ালে অভিনেতা শন ব্যানার্জীর সাথে অভিনয় করে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন তিনি। এরপর মারা যাওয়ার আগে পর্যন্ত কালার্স বাংলার ‘মন মানে না’ সিরিয়ালে অভিনয় করছিলেন তিনি। সেই সিরিয়ালেও অনেকেরই প্রিয় অভিনেত্রী ছিলেন পল্লবী।

তবে লক্ষ্য করার বিষয় হল মারা যাওয়ার আগে পল্লবীর ইনস্টাগ্রাম অনুগামীর সংখ্যা ছিল ৬২ হাজার। অথচ মারা যাওয়ার পর আজ ১৩ দিনের মাথায় সেই অনুগামীর সংখ্যা হয়ে গিয়েছে ১ লক্ষ। আজ মানুষটাই বেঁচে নেই এদিকে অনুগামীর সংখ্যা বাড়ছে। নেটিজেনদের এই ভালোবাসা যদি আগে দেখা জেট হয়তো অভিনেত্রী আজও নিজের ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করতেন।

Related Articles

Back to top button