গসিপবিনোদনসিরিয়াল

গুলি করা হয়েছে পল্লবীকে! পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে টেলিপাড়া থেকে উঠে এল বিস্ফোরক তথ্য

টলিউডের অভিনেত্রী পল্লবী দে (Pallavi Dey) এর মৃত্যু ঠিক কি কারণে হল সেই নিয়েই এখনো রহস্যের জাল রয়েই গিয়েছে। আজ একসপ্তাহ পেরিয়ে গিয়েছে, কলকাতার গড়ফার ফ্ল্যাট থেকে পাওয়া অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মৃত দেহ আদৌ আত্মহত্যা নাকি প্ল্যান করে করা খুন সেই নিয়েই চলছে তদন্ত। মূল সন্দেহের তীর গিয়ে পড়েছে লিভ ইন সঙ্গী সাগ্নিক চক্রবর্তীর (Sagnik Chakraborty) উপর। ইতিমধ্যেই বেশ কয়কেবার জেরার পর পুলিশ তাকে গ্রেফতারও করেছে। তবে এবার প্রকাশ্যে এল বিস্ফোরক তথ্য।

আত্মহত্যা নয়, তদন্ত করে জানা গিয়েছে গুলি খেয়ে মৃত্যু হয়েছে অভিনেত্রী পল্লবী দের! ১৫ই মে নিজের ভাড়া নেওয়া ফ্ল্যাটেই ঝুলন্ত অবস্থা পাওয়া গিয়েছিল পল্লবীর মৃতদেহ। প্রেমিক তথা লিভ ইন সঙ্গী সাগ্নিকই প্রথম সেই দেখ দেখতে পায় ও পুলিশকে খবর দেয়। এরপর পুলিশ এসে সেই দেহ উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় ময়না তদন্তের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।

Pallavi Dey death suicide or murder Primary post mortem report came out

প্রাথমিকভাবে পল্লবীর এই রহস্য মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলা হলেও অনেকেরই প্রশ্ন এমন হাসিখুশি একটা মেয়ে হটাৎ আত্মহত্যা করতে যাবে কেন? পল্লবীর বাবাও জানান যে তাঁর মেয়েকে হয়তো খুন করা হয়েছে। তবে কি সত্যিই গুলি করে খুন করা হয়েছে অভিনেত্রীকে? না আসলে ব্যাপারটা সম্পূর্ণ আলাদা। বাস্তবে নয় বরং পর্দায় গুলি খেয়ে মারা গিয়েছেন পল্লবী।

অভিনেত্রীর মারা যাওয়ার পর পাল্টে গিয়েছে সিরিয়ালের ট্র্যাক। কিছুদিন ব্যাঙ্কিং করে রাখা পর্ব দেখিয়ে পবদলানো হয়েছে অভিনেত্রী। সিরিয়ালেও গৌরীর মৃত্যু হবে, মঙ্গলবারই সেই দৃশ্যের শুটিং সম্পূর্ণ হয়ে গিয়েছে। এবার সিরিয়ালের প্রযোজক থেকে শুরু করে অভিনেতা অভিনেত্রীদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ।

পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, পল্লবী জানতে পেরেছিলেন যে সিরিয়ালটি শেষ হতে চলেছে। আর সেটা জানার পর থেকেই বেশ চিন্তায় পরে গিয়েছিল সে। সিরিয়াল শেষ হয়ে গেলে পরবর্তীকালে কি কাজ করবে সেই নিয়ে বেশ চিন্তায় ছিল, যার জেরে শুটিং ফ্লোরেই মাঝে মধ্যেই মেজাজ হারাতেন পল্লবী। একই কথা শোনা গিয়েছিল প্রেমিক সাগ্নিকের মুখেও। সিরিয়াল শেষ হয়ে যাবে জানতে পারে মানসিক অবসাদে ছিলেন পল্লবী। কিভাবে EMI শোধ করবেন সেই চিন্তায় পরে গিয়েছিল সে।

Related Articles

Back to top button