গসিপবিনোদন

ভূতের খপ্পরে পড়েছিলেন খোদ টলিউড সুপারস্টার প্রসেনজিৎ! ভূত চতুর্দশীর দিন রইল সেই অজানা কাহিনী

কালী পুজোর (Kali Pujo) আগের দিনটি প্রত্যেক বছর ভূত চতুর্দশী (Bhoot Choturdoshi) হিসেবে উদযাপিত হয়। আজকের দিনে সকলেই যেন অশরীরীর ভয়ে একটু বেশিই কাঁপেন। অনেক সময় তো আবার বন্ধুবান্ধবরা ইয়ার্কি, মস্করা করে ভয়ও দেখিয়ে থাকেন। বাড়ির বড়রা আবার অনেক সময় এও বলেন যে একটু অসাবধান হলে কিন্তু অশরীরীর দেখাও মিলে যেতে পারে।

তবে আপনি কী জানেন, টলিউডের (Tollywood) বহু তারকা নিজেদের জীবনে ভূতের খপ্পরে পড়েছেন। হ্যাঁ, ঠিকই দেখছেন। টলিউডের বর্ষীয়ান অভিনেতা পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে শুরু করে পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় ভূতের খপ্পড়ে পড়েছেন অনেকেই। এই তালিকায় নাম রয়েছে খোদ টলিউড ‘ইন্ডাস্ট্রি’ প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়েরও (Prosenjit Chatterjee)।

Prosenjit Chatterjee

সম্প্রতি একটি নামী সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনের পাতায় উঠে এসেছে বুম্বাদার অশরীরী দর্শনের সেই অজানা কাহিনী। তা জানলে হয়তো কিন্তু গা ছমছম করে উঠতে পারে আপনারও। আজ ভূত চতুর্দশী স্পেশ্যাল এই প্রতিবেদনে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের ভূত দেখার সেই অজানা কাহিনী তুলে ধরা হল।

বুম্বাদার কেরিয়ারের শুরুর দিকে ঘটনা এটি। কাজের এত বেশি চাপ থাকত যে মাঝেমধ্যেই তিনি বাড়িও ফিরতে পারতেন না। কোনও কোনও সময় ভোর ৩টের সময় কাজ করার পর আবার পরের দিন ভোর ৫টায় কলটাইম থাকত প্রসেনজিতের। সেই কারণে মাঝেমধ্যেই ইন্দ্রপুরী স্টুডিওয় রাত কাটাতেন তিনি।

Prosenjit Chatterjee

স্টুডিও কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে সকলকে ২ নম্বর থাকার জন্য বারণ করা হতো। তবে প্রসেনজিৎ যখন স্টুডিওয় রাত কাটাতেন সেই সময় নাকি স্পষ্ট কারোর হাসির শব্দ, দেওয়ালে আঁচড় কাটার শব্দ শুনতে পেতেন। এই সব আওয়াজ শুনে নিজের কান চেপে ধরতেন বুম্বাদা। অনেক সময়ই অভিনেতা না ঘুমিয়েই রাত কাটাতেন।

অবশ্য শুধুমাত্র বুম্বাদাই নন, ভূতের খপ্পরে পড়েছেন টলিউডের বহু নামী অভিনেতা। কেউ শ্যুটিং করতে গিয়ে, কেউ আবার ঘুরতে গিয়ে। অশরীরীর উপস্থিতি অনুভব করেছেন ইন্ডাস্ট্রির অনেক নামী অভিনেতা। আপনিও কোনোদিন এমন কিছু অনুভব করেছেন নাকি?

Related Articles

Back to top button