মহামারী আইন অমান্য করে পূজা মণ্ডপে হাজিরার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের! চাপে নুসরাত, সৃজিত, মহুয়ারা

অন্যবারের থেকে এবার পুজোর আবহ সম্পূর্ণ আলাদা। সারা বিশ্বজুড়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে মারণ ভাইরাস করোনা। রোজই নয়া রেকর্ড গড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এই কারণেই পরিস্থিতি সামাল দিতে করোনা আবহে পুজো মন্ডপে মানুষের প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশানুসারে সমস্ত পুজো মন্ডপেই ‘নো এন্ট্রি’ করে দেওয়া হয়।

কিন্তু আইনি নির্দেশের তোয়াক্কা না করে অষ্টমীর দিন সুরুচি সংঘের মন্ডপে হাজির হন সৃজিত, নুসরাতরা। পুজোর সাজে ঢাক বাজাতেও দেখা যায় তাদের। এরপরেই কয়েকজন সেলেবের বিরুদ্ধে মহামারী আইন ভাঙার অভিযোগে আইনি পদক্ষেপ নেন অজয় কুমার দের আইনজীবী সব্যসাচী চট্টোপাধ্যায়।

সমস্ত নিষেধাজ্ঞা তোয়াক্কা করে সৃজিত, মিথিলা, নুসরাতকে দেখা যায় পুজো মন্ডপে আর তারপরেই শুরু হয় শোরগোল। নুসরাত জাহান ছাড়াও কৃষ্ণনগর লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ মহুয়া মিত্রকেও দেখা যায় মন্ডপে প্রবেশ করতে। এই প্রসঙ্গে আইনজীবী সব্যসাচী চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘আমরা সবটাই নজরে রাখছি, যিনিই নির্দেশ অমান্য করবেন ,তাঁর বিরুদ্ধেই আমরা ব্যবস্থা নেব।’

আইনজীবী আরও জানান, পুজো মন্ডপে সেলেবরা অঞ্জলি দিতেই পারেন যদি তারা পুজোর উদ্যোক্তা হন তবেই। কিন্তু ওই তারকাদের কেউই সেই এলাকার বাসীন্দা নয় আর তা নিয়েই উঠছে প্রশ্ন। এবং তারকাদের দেখা যাওয়া মানেই সেখানে লোক সমাগম হওয়ার ভয় থেকেই যায়। যদিও সৃজিত নুসরাতদের দাবি তারা অনেক বছর ধরেই সুরুচির সদস্য।